এবার ঢাকায় ফিরতে যুদ্ধ

ঈদের ছুটি শেষে নারীর টানে বাড়ি ফেরা মানুষগুলো তাদের নিজ নিজ কর্মস্থলে ফেরা শুরু করেছেন। গতকাল ঢাকামুখী যাত্রীদের চাপ কম থাকলেও আজ সকাল থেকেই চাপ বাড়তে শুরু করেছে। যেখানে মানা হচ্ছে না তেমন স্বাস্থ্যবিধি।

এদিকে গণপরিবহন বন্ধ থাকায় ঘাট এলাকায় যাত্রীদের পৌঁছাতে হচ্ছে ভেঙে ভেঙে। এতে ভোগান্তির পাশাপাশি দিতে হচ্ছে বাড়তি ভাড়াও।

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ঢাকামুখী যাত্রীরা রোববার সকালে দেশের দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার অন্যতম প্রবেশদ্বার দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাটের প্রতিটি ফেরিতে যাত্রী ও যানবাহনের ভিড় দেখা গেছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা এরিয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার জিল্লুর রহমান জানান, শনিবার থেকে বাড়ি ফেরা কর্মজীবী মানুষগুলো কর্মস্থলে ফেরা শুরু করেন।

এছাড়া রোববার (১৬ মে) সকাল ৯টার পর থেকে বাংলাবাজার থেকে শিমুলিয়াঘাটে আসা প্রতিটি ফেরিতে যাত্রীর চাপ দেখা যায়। এসব ফেরিতে জরুরি, যাত্রীবাহী ও পণ্যবাহী যানবাহনও পার হচ্ছে।

শিমুলিয়া ফেরিঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মাহবুবুর রহমান বলেন, শিমুলিয়াঘাটে তেমন চাপ না থাকলেও বাংলাবাজার ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ রয়েছে। সকাল থেকে এ নৌরুটে ১৮টি ফেরি চালু রয়েছে। এসব ফেরিতে প্রচুর সংখ্যক ঢাকামুখী মানুষ শিমুলিয়া ঘাটে আসছেন।

ফেরিঘাটে আসা কয়েকজন যাত্রী বলেন, ঈদের আগে অনেক কষ্ট করে বাড়ি যেতে হয়েছে। তাই কষ্ট এড়াতে তারা একদিন পর কর্মস্থলের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন।

তবে ঈদের আগের মতই দূরপাল্লার বাস বন্ধ থাকায় ঘাট পার হওয়ার পর ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়ির জন্য অপেক্ষা করে ভেঙে ভেঙে ঢাকায় প্রবেশ করছেন কর্মজীবি মানুষেরা। গন্তব্যে পৌঁছাতে যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *