করোনায় মৃত্যু হলে ৫০ লাখ টাকা পাবেন ব্যাংকার

করোনার মহামারিতে সবকিছু বন্ধ থাকলেও সীমিত পরিসরে চলছে ব্যাংকিং কার্যক্রম। এতে তাদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়ছে। ব্যাংকের এমন কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ঝুঁকি বিবেচনায় নিয়ে দায়িত্ব পালনে উৎসাহ জোগাতে বিশেষ ক্ষতিপূরণ প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

করোনায় এই পরিস্থিতিতে কোনও ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে পদভেদে ২৫ লাখ থেকে ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত আর্থিক ক্ষতিপূরণ পাবেন।

সোমবার এক সার্কুলারে এই কথা জানানো হয়।

সার্কুলারটি দেশে কার্যরত সব তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহী বরাবর পাঠিয়েছে।

সার্কুলারে বলা হয়েছে, ব্যাংকে কর্মরত অবস্থায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীর অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু হলে ক্ষতিপূরণ হিসেবে কর্মকর্তা-কর্মচারীর স্ত্রী/স্বামী/সন্তান এবং অবিবাহিতদের ক্ষেত্রে বাবা/মা ক্ষতিপূরণের অর্থ পাবেন।

এ সার্কুলার লেটারের নির্দেশনা গত বছরের ২৯ থেকে কার্যকর হবে এবং পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। অর্থাৎ ২৯ মার্চ থেকে যেসব ব্যাংকার করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন তাদের পরিবার এ সার্কুলারের আওতায় ক্ষতিপূরণ পাবেন।

প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা, সিনিয়র অফিসার, প্রবেশনারি অফিসার, ম্যানেজমেন্ট ট্রেইনি অফিসার বা সমমান হতে তদূর্ধ্ব পদমর্যাদার কর্মকর্তা মারা গেলে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৫০ লাখ টাকা পাবেন।

সাড়ে ৩৭ লাখ টাকা পাবেন ট্রেইনি অ্যাসিস্ট্যান্ট অফিসার বা সমমানের পদমর্যাদার কর্মকর্তারা । স্টাফ ও সাব-স্টাফের (যেকোনো প্রক্রিয়ায় নিয়োগ/নিয়োজিত) ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ পাবেন ২৫ লাখ টাকা।

গেল বছরের ১৫ এপ্রিল এক নির্দেশনায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানিয়েছিল, সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটির মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হলে ব্যাংক কর্মকর্তা ৫ লাখ থেকে ১০ লাখ টাকা পাবেন। আর মারা গেলে এর পাঁচ গুণ বেশি ক্ষতিপূরণ দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। আজকের প্রজ্ঞাপনে এ নির্দেশনা বাতিল করা হয়েছে। ফলে আক্রান্ত হলে এখন কোনও ব্যাংক কর্মকর্তা আর ক্ষতিপূরণ পাবেন না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *