দেড়শ পেরোতেই ৫ উইকেট হারিয়ে বিপাকে উইন্ডিজ

চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিনের প্রথম বলেই উইন্ডিজ শিবিরে আঘাত হানেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ক্যারিবীয়দের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান বনার ১৭ রান করে শান্তর হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান। ফলে ৭৫ রান নিয়ে দ্বিতীয় দিন শেষ করা উইন্ডিজের স্কোরকার্ড দাঁড়ায় ৭৫-৩।

এরপর অবশ্য বেশ কিছুক্ষণ দৃঢ় ব্যাটিং করেছে ক্যারিবীয় অধিনায়ক ক্রেইগ ব্রাথওয়েইট এবং কাইল মেয়ার্স। পরে দলীয় ১৩০ রানের সময় উইন্ডিজের চতুর্থ উইকেট তুলে নেয় টাইগাররা। ব্যক্তগত ৭৬ রান করে নাইম হাসানের বলে বোল্ড হন ব্রাথওয়েইট।

এরপর দলীয় স্কোরবোর্ডে যখন ১৫৪ রান তখন সাজঘরে ফেরেন আরেক সেট ব্যাটসম্যান কাইল মেয়ার্স। ৪০ রান করে মেহেদী মিরাজের বলে এলবিডাব্লিউ’র শিকার হন মেয়ার্স।

তৃতীয় দিনের প্রথম সেশন শেষ করে লাঞ্চ বিরতীতে যাওয়ার আগে সফরকারীরা করেছে ১৮৯ রান। হারিয়েছে ৫ উইকেট।

এর আগে গতকাল বৃহস্পতিবার টাইগার অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজের ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরির দিনে অনবদ্য ছিল পুরো দল। উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের সাপ-লুডোর ছকে ফেলে ভিরমি খাইয়ে দিচ্ছেন মোস্তাফিজ। জোড়া আঘাতে তিনি নাস্তানাবুঁদ করে দিয়েছিলেন ক্যারিবীয়ানদের। ৪৩০ রানে বাংলাদেশ দলকে অল আউট করে উইন্ডিজ দল ব্যাটিংয়ে নেমেই হারায় প্রথম উইকেট। ম্যাচের পঞ্চম ওভারে মুস্তাফিজের বলে এলবিডব্লিউ’র শিকার হয়ে মাত্র তিন রান করে সাজঘরে ফেরেন উইন্ডিজ ওপেনার জন ক্যাম্পবেল। তিনি ১৫ বলে করেন ৩ রান।

দলীয় ২৪ রানে দ্বিতীয় উইকেট হারায় সফরকারীরা। ইনিংসের ১১তম ওভারের শেষ বলে শায়নে মোসলেকেও এলবিডব্লিও’র ফাঁদে পেলেন মোস্তাফিজুর রহমান। ২৩ বল মোকাবেলা করে ২ রান করেন তিনি।

শুরুতেই ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়লেও দিন শেষে আর কোন উইকেট হারায়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২৯ ওভারে ২ উইকেটে ৭৫ রানেই দিন শেষ করেছে ক্যারিবীয়রা। ব্যাট হাতে ওপেনিংয়ে নেমে অধিনায়ক ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েট ক্রিজে আছেন।

পেসার সহায়ক পিচ না বলেই টাইগার দলে চারজন স্পিনার রাখা হয়েছে। তবে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামের বোলিং ইনিংসে উজ্জ্বল দ্য ফিজ।

এদিকে মেহেদী হাসান মিরাজের সেঞ্চুরিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দুই ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম ইনিংসে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৪৩০ রানের বড় সংগ্রহ পায় বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দিন ব্যাট হাতে আট নম্বরে উইকেটে নেমে টেস্ট ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি তুলে ১০৩ রানে আউট হন মিরাজ।

মিরাজ ছাড়াও সাকিব আল হাসান ৬৮, ওপেনার সাদমান ইসলাম ৫৯ ও মুশফিকুর রহিম-লিটন দাস ৩৮ রান করে করেন। বুধবার টস জিতে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশের দিন শেষে সংগ্রহ ছিল ৫ উইকেটে ২৪২ রান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × two =

Translate »