ট্রাম্পের বিচার না হলে খারাপ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে : বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার না হলে তা খারাপ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। সিএনএনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বাইডেন এ মন্তব্য করেছেন। বাইডেন আরও বলেন, ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার চলছে। তবে সিনেটে ট্রাম্পের অভিশংসনের বিচার চললে তা আইন সভার বিভিন্ন কাজ এবং মন্ত্রিসভার নিয়োগে বিলম্ব ঘটাবে।

এদিকে, সিনেটের প্রায় প্রতিটি রিপাবলিকান সদস্য মঙ্গলবার ঘোষণা দিয়েছেন যে, সাবেক কোনো প্রেসিডেন্টকে অভিশংসনের জন্য বিচারের মুখোমুখি করা স্পষ্টভাবে সংবিধান পরিপন্থী। তাদের ঘোষণা ইঙ্গিত দিচ্ছে যে, ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিনেটে অভিশংসন সংক্রান্ত যে প্রস্তাব উত্থাপন হয়েছে সেটির ব্যর্থ হওয়ার বিষয়টি প্রায় নিশ্চিত।

জানা গেছে, ট্রাম্পের অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়া চলবে কিনা- গত মঙ্গলবার আমেরিকার কেন্টাকি রাজ্যের সিনেটের র‌্যান্ড পল এ সংক্রান্ত একটি মোশন উত্থাপন করেন। তাতে ৫৫ জন রিপাবলিকান সিনেটর অভিশংসন বিচার প্রক্রিয়ার বিপক্ষে ভোট দেন। আর পক্ষে ভোট দেন ৪৫ জন সিনেটর।ডেমোক্র্যাট সিনেটের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন ৫ জন রিপাবলিকান সিনেটরও। ট্রাম্পকে অভিশংসন করতে হলে কমপক্ষে ১৭ জন রিপাবলিকান সিনেটরের সমর্থন দরকার। সুতরাং এই মোশন থেকে স্পষ্টভাবেই বোঝা যাচ্ছে, অভিশংসন থেকে বেঁচে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

তবে সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাইডেন বলেছেন, ট্রাম্প যদি ছয় মাস পর বিদায় নিতেন তাহলে বিচারের ফলটা ভিন্ন হতো। ইতিমধ্যেই আলোচনা চলছে, সিনেটে ডেমোক্র্যাটরা মাত্র একটি আসনে সংখ্যাগরিষ্ঠ। ফলে ট্রাম্পকে দোষী সাব্যস্ত করতে হলে অন্তত ১৭ জন রিপাবলিকান সিনেটরের সমর্থন লাগবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 3 =

Translate »