শিশু সামিউল হত্যা : মা ও প্রেমিকের মৃত্যুদণ্ড

রাজধানীর আদাবরে শিশু খন্দকার সামিউল আজিম ওয়াফি (৫) হত্যা মামলায় দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। আজ রোববার দুপুরের দিকে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৪-এর বিচারক শেখ নাজমুল আলম এই মামলার রায় ঘোষণা করেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি হলেন শিশু সামিউলের মা আয়েশা হুমায়রা ওরফে এশা (২৫) ও তাঁর কথিত প্রেমিক শামসুজ্জামান বাক্কু (৩৮)।

আসামি হুমায়রা ও শামসুজ্জামান জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছেন। তাঁদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি রয়েছে।

গত ২৩ নভেম্বর এই মামলার যুক্তিতর্ক শুনানি শেষ হয়। শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে উভয় আসামির সর্বোচ্চ সাজা মৃত্যুদণ্ড চায়।

রাষ্ট্রপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) ফারুকুজ্জামান ভূঁইয়া।

মামলার অভিযোগ ও অভিযোগপত্র অনুযায়ী, মায়ের সঙ্গে আরেকজনের সম্পর্ক দেখে ফেলায় ২০১০ সালের ২৩ জুন সামিউলকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় সামিউলের বাবা কে আর আজম বাদী হয়ে আদাবর থানায় হত্যা মামলা করেন।

মামলাটি তদন্ত করে পরের বছরের ২৫ অক্টোবর হুমায়রা ও শামসুজ্জামানের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেওয়া হয়।

২০১২ সালের ১ ফেব্রুয়ারি দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষ ২২ জন সাক্ষীকে আদালতে হাজির করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *