মেঘনায় ট্রলারডুবি, নববধূসহ সাতজনের মরদেহ উদ্ধার

নোয়াখালীর হাতিয়ার চেয়ারম্যান ঘাটের দক্ষিণ-পশ্চিমে মেঘনা নদীতে ৮০-৮৫ জন বরযাত্রী নিয়ে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। এ সময় নববধূসহ সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ড।

মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বর) দুপুরে মনপুরা যাওয়ার পথে কেয়ারিংচরে এ ট্রলারডুবির ঘটনা ঘটে। তবে নিখোঁজের সঠিক কোনো তথ্য এখনও পাওয়া যায়নি।

নিহতরা হলেন- নববধূ তাসলিমা বেগম, আছমা বেগম, রাহেনা বেগম, নুর জাহান এবং দুই বছরের শিশু আফরিন আক্তার লামিয়া, আট বছরের শিশু লিলি আক্তার, পাঁচ বছরের শিশু হোসনে আরা বেগম রুপা।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নলেরচর শান্তির ঘাট থেকে ৮০-৮৫ জন বরযাত্রী নিয়ে একটি ইঞ্জিনচালিত ট্রলার মনপুরার উদ্দেশে যাচ্ছিল। পথে কেয়ারিংচর এলাকায় ট্রলারটি মেঘনা নদীতে ডুবে যায়। স্থানীয়দের সহায়তায় ট্রলার থেকে সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করে নৌ-পুলিশ ও কোস্টগার্ড।

উদ্ধারকাজে সাহায্যকারী স্থানীয় রফিক ও পুলিশের কনস্টেবল সোহাগ জানান, ট্রলারে থাকা অন্তত ৩০ জন জীবিত উদ্ধার হয়েছে। অন্যদের উদ্ধারে পুলিশসহ স্থানীয়রা কাজ করছে। ট্রলারের যাত্রীরা বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে যাওয়ায় উদ্ধার করতে সমস্যা হচ্ছে।

হাতিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইমরান হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, এ পর্যন্ত নববধূসহ সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। ৩০ জনের মতো জীবিত উদ্ধার হয়েছে। তবে এখনও বেশ কয়েকজন নিখোঁজ। তাদের উদ্ধারে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড ও পুলিশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *