যুক্তরাজ্যে ‘নতুন’ করোনাভাইরাস শনাক্ত

ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক আইন প্রণেতাদের জানিয়েছেন, নতুন ধরনের একটি করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সেটি ইংল্যান্ডের কিছু অংশে দ্রুত বাড়ছে বলেও জানান তিনি। ব্রিটিশ মন্ত্রী জানান নতুন ধরনের এই ভাইরাসে সংক্রমিত রোগী শনাক্ত করেছে অন্তত ৬০টি আলাদা স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে (ডব্লিউএইচও) ইতোমধ্যে বিষয়টি জানানো হয়েছে বলে জানিয়ে তিনি বলেন ব্রিটিশ বিজ্ঞানীরা নতুন ধরনের এই ভাইরাস নিয়ে বিস্তারিত গবেষণা করছেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

 

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর বিশ্বজুড়ে মহামারির আকার নেয় করোনাভাইরাস। দুনিয়া জুড়ে কোটি কোটি মানুষকে আক্রান্ত ও লাখ লাখ মানুষের মৃত্যুর কারণ হওয়ার পর সম্প্রতি যুক্তরাজ্যসহ কয়েকটি দেশে এই ভাইরাসের টিকা গণহারে প্রয়োগ শুরু হয়েছে। অনেকেই আশা করছেন টিকা প্রয়োগের মধ্য দিয়ে এই মহামারির অবসান হবে।

তবে সোমবার ব্রিটিশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানকক হাউস অব কমন্সে জানান গত সপ্তাহ জুড়ে লন্ডন, কেন্ট, এসেক্সের অংশবিশেষ এবং হার্ডফোর্ডশায়ারের কিছু এলাকায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দ্রুত বেড়েছে। তিনি জানান, ইতোমধ্যে নতুন ধরনের এই ভাইরাসে আক্রান্ত এক হাজার মানুষ শনাক্ত করা হয়েছে। মূলত ইংল্যান্ডের দক্ষিণাঞ্চলে এসব রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে জানান তিনি।

তবে ব্রিটিশ মন্ত্রী খানিকটা আশ্বস্ত করে বলেন, নতুন ধরনের এই করোনাভাইরাস আরও মারাত্মক কিংবা ভ্যাকসিন আর কার্যকর হবে না সেই রকম সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর মতো কোনও ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, ‘আমরা জানি না কোন কারণে নতুন ধরনের ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে।’

বার্মিংহাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ প্রফেসর অ্যালান ম্যাকন্যালি জানিয়েছেন, ব্রিটিশ গবেষণাগারগুলো গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই নতুন ধরনের এই ভাইরাস নিয়ে গবেষণা করছে। তিনি বলেন, নতুন ধরনের এই ভাইরাসের বৈশিষ্ট্য নির্ধারণ এবং এর উত্থান নিয়ে বোঝাপড়ার জন্য ব্যাপক তৎপরতা চলছে। ভাইরাসের বিবর্তন স্বাভাবিক জানিয়ে তিনি সকলকে শান্ত থাকার পরামর্শ দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *