৩০ কোটি টাকার মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস, ৭ কোটি টাকা জরিমানা

চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে অক্টোবর মাস পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে মেয়াদোত্তীর্ণ, নকল, অনিবন্ধিত ও ভেজাল ওষুধ সংরক্ষণের দায়ে ৭ কোটি ২৬ লাখ ১০ হাজার ২০৩ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। পাশাপাশি গত বছরের জুলাই মাসে চার দিনসহ এই বছরে নভেম্বর পর্যন্ত ৩০ কোটি ১৪ লাখ ২২ হাজার ১৮৬ টাকার মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ধ্বংস করা হয়েছে। ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের আদালতে দাখিল করা সর্বশেষ প্রতিবেদনে এমন তথ্য এসেছে।

বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে আজ সোমবার ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের ওই প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করে রাষ্ট্রপক্ষ।

হাইকোর্ট সারা দেশে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ মজুত ও বিক্রি বন্ধ এবং মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ প্রত্যাহার বা ধ্বংস করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে এবং মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বিক্রি ও মজুতে জড়িত ব্যক্তি ও ফার্মেসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেন। এ বিষয়ে আদালতে প্রতিবেদন দিতেও বলা হয়। এর ধারাবাহিকতায় আজ বিষয়টি ওঠে।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মাহফুজুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করে শুনানিতে অংশ নেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *