থানায় বসেই হয় সিনহা হত্যার পরিকল্পনা: র‌্যাব

টেকনাফ থানায় বসেই অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যার পরিকল্পনা হয় বলে জানিয়েছেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ। তাকে হত্যার দুই সপ্তাহ আগে জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে পরিকল্পনাটি চূড়ান্ত হয়। রোববার র‌্যাব কার্যালয়ে বিফ্রিংয়ে লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ এ তথ্য জানান।

আশিক বিল্লাহ বলেন, সিনহা হত্যাকাণ্ড পরিকল্পিত। এর মূল ভূমিকায় ছিলেন টেকনাফ থানার ওসি প্রদীপ দাস। সিনহা টেকনাফে তার সহযোগীদের নিয়ে একটি ভিডিও করার পরিকল্পনা করছিলেন। ওই সময় স্থানীয়রা সিনহাকে ওসি প্রদীপের ইয়াবা চোরাচালানসহ বিভিন্ন অপকর্মের কথা জানান। অভিযোগের বিষয়ে সিনহা ওসি প্রদীপের সাক্ষাৎকার নিতে চান। সিনহার সহযোগীরা তখন তার সঙ্গে ছিলেন। কিন্তু সিনহাকে ওসি প্রদীপ এসব থেকে সরে আসতে বলেন। সিনহা তাতে রাজি না হলে তাকে দেখে নেওয়ার হুমকি দেন ওসি প্রদীপ।

লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ আরও বলেন, ওসি প্রদীপ বুঝতে পারেন তিনি বিপদে পড়তে যাচ্ছেন। এজন্য তিনি সিনহাকে শায়েস্তা করার পরিকল্পনা করেন। এরই অংশ হিসেবে জুলাইয়ের দ্বিতীয় সপ্তাহে তিনি লিয়াকত ও পুলিশের তিন সোর্স নুরুল আমিন, আয়াত ও নেজাম উদ্দীনকে নিয়ে টেকনাফ থানায় একটি বৈঠক করেন। ওই বৈঠকে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহাকে হত্যার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর চেকপোস্টে গাড়ি তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সিনহা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *