রাজশাহীর বিপক্ষে প্রতিশোধের জয় খুলনার

মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর বিপক্ষে প্রতিশোধের জয় পেল জেমকন খুলনা। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে রবিবার দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে নাজমুল হোসেন শান্তদের ৫ উইকেটে হারিয়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের দল। টুর্নামেন্টে এর আগেরবারে দেখায় খুলনাকে ৬ উইকেটে হারিয়েছিল রাজশাহী। এখন পর্যন্ত ৬ ম্যাচ খেলে ৮ পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট টেবিলে খুলনা আছে দ্বিতীয় অবস্থানে। সমান সংখ্যক ম্যাচ খেলে ৪ পয়েন্ট নিয়ে রাজশাহী আছে চতুর্থ অবস্থানে।

এদিন মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচটিতে রাজশাহীর দেয়া ১৪৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১৯.২ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে জয় তুলে নেয় খুলনা।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন জহুরুল ইসলাম। ১৯ বলে ৩১ করে অপরাজিত থাকেন অধিনায়ক রিয়াদ। রাজশাহীর বোলারদের মধ্যে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ১টি, আরাফাত সানি ১টি, মুকিদুল ইসলাম ২টি ও ফরহাদ রেজা ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

খুলনা ব্যাটিংয়ে নেমে দারুণ সূচনা করে। ওপেনিংয়ে ৫৬ রানের জুটি গড়েন জহুরুল-জাকির। নবম ওভারে শর্ট মিডউইকেটে শান্তর হাতে ক্যাচ হন জাকির। ১২তম ওভারে ডিপ মিউইকেটে রনি তালুকদারের হাতে ধরা পড়েন জহুরুল।

দলীয় ৯৪ রানে মুকিদুলের বলে এলবিডব্লিউ হন ইমরুল। অন্য ম্যাচের মতো এই ম্যাচেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ সাকিব। ৫ বলে ৪ রান করে সাইফউদ্দিনের বলে এলবিডব্লিউ হন তিনি। দলীয় ১০৯ রানে মুকিদুলের বলে এলবিডব্লিউ হন শামীম হোসেন। রিভিউ নিয়েও রক্ষা পাননি তিনি। পরে রিয়াদ ও আরিফুল হক জুটি বেঁধে দলের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪৫ রান সংগ্রহ করে রাজশাহী। দলটির অধিনায়ক শান্ত ওপেনিংয়ে নেমে ৩৮ বলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কার সাহায্যে ৫৫ রান করেন। ২১ বলে ৩৭ করে অপরাজিত থাকেন নুরুল হাসান সোহান। ১৫ করে অপরাজিত থাকেন জাকের আলী।

খুলনার বোলারদের মধ্যে আল-আমিন হোসেন ১টি, শুভাগত হোম ২টি, শহীদুল ইসলাম ১টি ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ১টি করে উইকেট শিকার করেন।

রাজশাহী ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ৪ রানে প্রথম উইকেট হারায়। শুভাগত হোমের বলে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন আনিসুল ইসলাম ইমন। ৪ বলে ১ রান করেন তিনি। এরপর শান্তর সঙ্গে জুটি বাঁধেন রনি তালুকদার। দলীয় ৪৭ রানে রনি ফিরে যান।

অপর প্রান্ত থেকে উইকেট পড়লেও শান্ত দারুণ খেলছিলেন। রনি ফেরার পর শেখ মেহেদীকে সঙ্গে নিয়ে তিনি দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন। ১২তম ওভারে উড়িয়ে মারতে গিয়ে ডিপ মিডউইকেটে শুভাগতর হাতে ধরা পড়েন মেহেদী।

পরের ওভারে রিয়াদের বলে ডিপ মিডউইকেটে শামীম হোসেনের হাতে ধরা পড়েন শান্ত। পাঁচ নম্বর পজিশনে নেমে ফজলে মাহমুদ ফিরে যান ৬ বলে ৯ রান করে। পরে ৫২ রানের জুটি গড়ে অপরাজিত থাকেন সোহান ও জাকের আলী। ম্যাচ সেরা হন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর

ফল: ৫ উইকেটে জয়ী জেমকন খুলনা।

মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী: ১৪৫/৫ (২০ ওভার)

(শান্ত ৫৫, আনিসুল ১, রনি ১৪, শেখ মেহেদী ৯, ফজলে মাহমুদ ৯, সোহান ৩৭*, জাকের ১৫*; আল-আমিন হোসেন ১/৩৫, শুভাগত ২/২৫, সাকিব ০/১৭, শহীদুল ১/৪৩, হাসান মাহমুদ ০/১৬, মাহমুদউল্লাহ ১/৪)।

জেমকন খুলনা: ১৪৬/৫ (১৯.২ ওভার)

(জহুরুল ৪৩, জাকির ১৯, ইমরুল ২৭, সাকিব ৪, মাহমুদউল্লাহ ৩১*, শামীম ৭, আরিফুল ১০*; সাইফউদ্দিন ১/৩৩, শেখ মেহেদী ০/৩০, আরাফাত সানি ১/২৩, মুকিদুল ২/৩১, ফরহাদ রেজা ১/২৭)।

ম্যাচ সেরা: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (জেমকন খুলনা)।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *