ফ্রান্সে গির্জার বাইরে যাজককে এলোপাতাড়ি গুলি

ফ্রান্সের লিয়ন শহরে একটি গির্জার সামনে এক গ্রিক ধর্মযাজককে গুলি করে মারাত্মক আহত করেছে এক দুর্বৃত্ত। এরপরই হামলাকারী পালিয়ে যায় বলে জানিয়েছে পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা। তবে কি কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে কয়েক ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও সে সম্পর্কে কোনো পরিষ্কার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে না। সন্ত্রাসের সঙ্গে এ হামলার কোনো যোগসূত্র আছে কিনা কর্মকর্তারা তেমনও কোনো ইঙ্গিত দেন নি। পুলিশ এবং জুডিশিয়াল সূত্রগুলো বলেছে, সন্ত্রাস বিরোধী প্রসিকিউটরদের সেখানে ডাকা হয়নি। এ খবর দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, শনিবার স্থানীয় সময় বিকেল ৪টার দিকে ওই যাজককে গুলি করে ওই দুর্বৃত্ত। এ সময় তিনি গির্জা বন্ধ করছিলেন। পুলিশ সূত্র বলেছেন, আহত যাজককে জীবন রক্ষামূলক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেছেন, গির্জাটি শহরের কেন্দ্রস্থলে। এটি একটি গ্রিক অর্থোডক্স গির্জা। পুলিশের আরেকটি সূত্র বলেছে, ওই যাজক গ্রিক নাগরিক। ফলে গ্রিস সরকারের একজন কর্মকর্তা তাকে নিকোলাস কাকাভেলাকিস বলে শনাক্ত করেছেন। এ ঘটনায় লিয়নের কাছে একটি কাবাবের দোকান থেকে সন্দেহজনকভাবে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তবে সন্দেহজনকভাবে আটক ওই ব্যক্তিই হামলাকারী কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায় নি। পুলিশ এ ঘটনায় অন্য কাউকে সন্দেহ করছে কিনা তাও জানা যায় নি। তবে লিয়নে প্রসিকিউটরের অফিস থেকে একটি সূত্র বলেছে, হত্যা চেষ্টার অভিযোগ তদন্ত শুরু করেছে তারা। এর মাত্র দু’দিন আগে প্যারিসের নিস শহরে একটি গির্জায় এক ব্যক্তি এক নারীর শিরñেদ করে। হত্যা করে আরো দু’জনকে। হত্যাকা-ের সময় সে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে চিৎকার করতে থাকে। এরই প্রায় দু’সপ্তাহ আগে প্যারিসে একজন শিক্ষকের শিরñেদ করে চেচেন এক যুবক। স্যামুয়েল প্যাটি নামে ওই শিক্ষক শ্রেণিকক্ষে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (স.)-এর ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন করে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা দিয়েছেন।

এ অবস্থায় ফ্রান্সে ইসলামপন্থি উগ্রবাদীদের হামলা বৃদ্ধি পেতে পারে বলে সতর্কতা দিয়েছেন দেশটির মন্ত্রীরা। প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন উপাসনালয় ও স্কুলগুলোতে মোতায়েন করেছেন হাজার হাজার সেনা সদস্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *