জয় দিয়েই শুরু করেছে পাকিস্তান

ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়েকে দিয়ে করোনা পরবর্তী ক্রিকেট ফেরালো পাকিস্তান। আইসিসি ওয়ানডে লীগের অন্তর্ভূক্ত তিন ম্যাচের সিরিজ জয় দিয়েই শুরু করেছে পাকিস্তান। স্বাগতিকদের করা ২৮১/৮ রান তাড়া করতে নেমে জয়ের পথেই ছিল জিম্বাবুয়ে। ২৬ রানে শেষ ৬ উইকেট হারিয়ে ২৬ রানে ম্যাচ হারে সফরকারীরা। দলকে জেতাতে না পারলেও ১১২ রান করে ম্যাচ সেরা হয়েছেন জিম্বাবুয়ের ব্রেন্ডন টেলর।
রাওয়ালপিন্ডি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জিম্বাবুয়ের ব্যাটিংয়ের শুরুটা ভালো হয়নি। ইনিংসের তিন নম্বর বলেই ওপেনার ব্রায়ান চারিকে ফেরান শাহিন শাহ আফ্রিদি। পঞ্চম ওভারে আরেক ওপেনার চামু চিবাবাকেও (১৩) বিদায় করেন পাকিস্তানি তরুণ। এরপরই টেলরের প্রতিরোধ।
জিম্বাবুয়ের সাবেক অধিনায়ক প্রথমে ক্রেইগ আরভিনের সঙ্গে ৫৯ রানের জুটি গড়ে প্রাথমিক ধাক্কাটা সামলেছেন। পরে মাদভেরেকে নিয়ে জিম্বাবুয়েকে জয়ের কাছাকাছি নিয়ে গিয়েছিলেন। ৬ রানের ব্যবধানে টেলর, মাদভেরে ফিরলে পাকিস্তানি পেসের সামনে আর দাঁড়াতেই পারেনি জিম্বাবুয়ের মিডল-লোয়ার অর্ডার।
৪৯.৪ ওভারে ২৫৫ রানে গুটিয়ে গেছে সফরকারী দলটি। টেলর ১১৭ বলে ১১টি চার ৩টি ছক্কার সাহায্যে ১১২ রান করেছেন। আরভিন ৪১ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৪১ রান করেছেন। মাদভেরে ৬১ বলে ৭ চারে করেছেন ৫৫ রান। পাকিস্তানের হয়ে শাহিন শাহ আফ্রিদি ৪৯ রানে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন। ওয়াহাব রিয়াজ ৪১ রানে নিয়েছেন চার উইকেট।
এর আগে পাকিস্তানের ২৮১ রানের সংগ্রহে অবদান রেখেছেন বেশ কয়েকজন। পাকিস্তানকে ভালো একটা শুরু এনে দিয়ে ওপেনার আবিদ আলী ২১ রানে ফিরে যান। তিনে নেমে অধিনায়ক বাবর আজম ১৯ রান করে ফিরেছেন। তবে অপর ওপেনার ইমাম-উল হক ও চারে নামা হারিস সোহেল কার্যকারী দুটি ইনিংস খেলেছেন। ৭৫ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৫৮ রান করেন ইমাম। ৮২ বলে ৬ চার ২ ছয়ে ৭১ করেছেন হারিস সোহেল।
শেষ দিকে ফাহিম আশরাফ ১৬ বলে ২৩ ও ইমাদ ওয়াসিম ২৬ বলে ৩৪ রান করলে ২৮১ রানের সংগ্রহ পায় পাকিস্তান। জিম্বাবুয়ের পক্ষে টেন্ডাই ছিচোরো ৩২ রানে নিয়েছেন দুই উইকেট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three × two =

Translate »