এই প্রথম ইউরোপিয়ান আসরে টানা চার ম্যাচ জয়হীন রিয়াল

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লীগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচেও জয় পায়নি রিয়াল মাদ্রিদ। এবার হারতে হারতে ড্র করেছে রেকর্ড ১৩ বারের চ্যাম্পিয়নরা। মঙ্গলবার ‘বি’ গ্রুপে বরুশিয়া মনশেনগ্লাডবাখের মাঠে ৮৬ মিনিট পর্যন্ত ২-০ গোলে পিছিয়ে ছিল রিয়াল মাদ্রিদ। করিম বেনজেমা ও কাসেমিরোর গোলে শেষ পর্যন্ত ২-২ সমতা নিয়ে মাঠ ছাড়ে দলটি। প্রথম ম্যাচে ঘরের মাঠে শাখতার দোনেৎস্কের কাছে ৩-২ গোলে হেরেছিল কোচ জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। গত ১৪ বছরে এই প্রথম ইউরোপিয়ান আসরে টানা চার ম্যাচ জয়হীন রিয়াল। গত মৌসুমে শেষ ষোলোর দুই লেগেই ম্যানচেস্টার সিটির কাছে হেরে বাদ পড়েছিল দলটি। মঙ্গলবার জার্মানির বরুশিয়া পার্কে ৩৩তম মিনিটে রিয়ালের বিপক্ষে স্বাগতিকদের এগিয়ে নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড মার্কাস থুরাম।

৫৮তম মিনিটে থুরামের দ্বিতীয় গোলে জয়ই দেখছিল মনশেনগ্লাডবাখ। কিন্তু হাল ছাড়েনি রিয়াল মাদ্রিদ। ৮৭তম মিনিটে কাসেমিরোর অ্যাসিস্টে ব্যবধান কমান করিম বেনজেমা। যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে (৯০+৩) এই কাসেমিরোই সমতাসূচক গোল এনে দেন রিয়ালকে। অ্যাওয়ে ম্যাচে ২ গোলে পিছিয়ে পড়েও চ্যাম্পিয়ন্স লীগে রিয়াল মাদ্রিদ সবশেষে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল ২০০৬ সালে, ডাইনামো কিয়েভের বিপক্ষে। ম্যাচের পর শিষ্যদের প্রশংসা করে জিদান বলেন, ‘এমন নাটক হবে ভাবিনি। তবে ছেলেরা তাদের চরিত্র দেখিয়েছে। আমি বলবো এই ড্র আমাদের প্রাপ্য ছিল। প্রথমার্ধে আমরা একটা বড় ভুলের কারণে প্রথম গোলটা হজম করি। কঠিন একটা বছর কাটছে আমাদের। তবে আজ রাতে দলের পারফরম্যান্সে গর্বিত আমি।’
মঙ্গলবার ‘বি’ গ্রুপের অপর ম্যাচে শাখতার দোনেৎস্কের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করে ইন্টার মিলান। ২ ম্যাচে ৪ পয়েন্টের সুবাদে শীর্ষে রয়েছে ইউক্রেনের ক্লাব শাখতার। ২ ম্যাচে মাত্র ১ পয়েন্ট থাকায় ‘বি’ গ্রুপের পয়েন্ট তালিকায় সবার নিচে রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। টানা দুই ম্যাচ ড্রয়ে সমান ২ পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে মনশেনগ্লাডবাচ ও ইন্টার মিলান। মাদ্রিদের আরেক ক্লাব অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের রাতটা ভালো কেটেছে। ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে পর্তুগিজ তারকা হোয়াও ফেলিক্সের জোড়া গোলে তারা ৩-২ ব্যবধানে হারায় অস্ট্রিয়ান দল রেডবুল সালজবুর্গকে। গ্রুপের অপর ম্যাচে লোকোমটিভ মস্কোর বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় কুড়ায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। প্রতিপক্ষের মাঠে বায়ার্নের হয়ে একটি করে গোল করেন লিওন গোরেটজকা ও জশুয়া কিমিচ। টানা দুই জয়ে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে বায়ার্ন। ৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − 5 =

Translate »