ত্বকের ক্ষত সরিয়ে উজ্বলতা বাড়াবে কলাপাতা!

গাছ নানাভাবে মানুষের উপকার করে। ফল, ফুল, কাঠ, অক্সিজেন ওছায়া- এ সবকিছুই আমরা গাছ থেকে পাই। গাছের উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না। তাছাড়া এটাও জানি যে, এমন অনেক গাছ রয়েছে যেগুলো আমাদের শারীরিক সুস্থতা ও সৌন্দর্যের জন্য উপকারী।

ত্বকে ব্যবহারের জন্য বাজারে যেসব ক্রিম বা লোশন পাওয়া যায়, তার অনেকগুলোই বিভিন্ন গাছগাছালির সঙ্গে রাসায়নিক উপাদান যোগ করে তৈরি করা হয়। রাসায়নিক মিশ্রিত ত্বকের উপাদান ব্যবহারের চেয়ে সরাসরি প্রাকৃতিক উপাদান করাটাই স্বাস্থ্যসম্মত। অথচ আমাদের আশেপাশে নানা প্রাকৃতিক উপাদান থাকা সত্ত্বেও তা উপেক্ষা করে যাই।কেন ত্বকের যত্নের জন্য ব্যয় করবেন যখন আপনার বাগানেই এর সমাধান আছে?

ত্বকের জন্য কলাপাতা ওষুধ হিসেবে কাজ করে। যেমন- বিষাক্ত মৌমাছির হুল, পোকামাকড়ের কামড়, ফুসকুড়ি, মাকড়সার কামড়, সাধারণ ত্বকের জ্বালা উপশম করে। এজন্য কচি কলাপাতা ব্লেন্ড করে রস ক্ষত স্থানে সামান্য সময় রেখে ধুয়ে ফেলুন। যদি এই রস ব্যবহারের পর ত্বক জ্বালাপোড়া করে তবে দ্রুত ধুয়ে ফেলুন।

বিভিন্ন ক্রিম এবং লোশনে লেবেলে আলাটোয়িং নামক একটি ব্যয়বহুল এবং সক্রিয় উপাদানের দেখা যায়, যার উপস্থিতি কলাপাতার মধ্যে পাওয়া যায়। কলা পাতার ওপর কয়েকটি বরফের কিউব ঘষে নিয়ে ত্বকের ওপর প্রয়োগ করলে ত্বক আরো উজ্জ্বল ও সতেজ দেখায়।

তাছাড়া কলাপাতায় নিয়মিত খাবার খেলেও ত্বককে ভিতর থেকে সুস্থ রাখে। কারণ এই পাতার মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীর থেকে টক্সিক বেড়িয়ে যেতে সাহায্য় করে। ফলে ত্বক হয়ে ওঠে আরো বেশি উজ্জ্বল এবং সতেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *