বড় অঙ্কের প্রেসিডেন্টস কাপ শুরু অাজ

সাত মাস বিরতিতে কাল বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ দিয়ে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে ফিরছে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট। মূলত প্রস্তুতি বা করোনাকালের পরীক্ষামূলক সিরিজ হলেও তিন দলের এই প্রতিযোগিতাকে আকর্ষণীয় করে তুলতে প্রায় ৩৭ লাখ টাকার প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে বিসিবি।

বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছিলেন, প্রস্তুতিমূলক সিরিজ হলেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়াতে আর আকর্ষণীয় করে তুলতে তাঁরা খেলোয়াড়দের আর্থিকভাবে অনুপ্রাণিত করতে চান। সেটির অংশ হিসেবে আজ সিরিজের প্রাইজমানি ঘোষণা করেছে বিসিবি।

সিরিজে ভালো খেললে ক্রিকেটারদের আর্থিক প্রাপ্তি নেহাত মন্দ হবে না। চ্যাম্পিয়ন দল পাবে ১৫ লাখ টাকা, রানার্সআপ দল সাড়ে ৭ লাখ টাকা। সিরিজসেরা খেলোয়াড় পাবেন ২ লাখ টাকা। সিরিজের সেরা ব্যাটসম্যান, বোলার আর ফিল্ডার প্রত্যেকে পাবেন ১ লাখ টাকা করে। ম্যান অব দ্য ফাইনাল পাবেন ১ লাখ টাকা। গ্রুপ পর্বের ম্যান অব দ্য ম্যাচ পুরস্কারজয়ী খেলোয়াড়েরা পাবেন ৫০ হাজার টাকা করে। প্রতিটি ম্যাচের সেরা ব্যাটসম্যান, বোলার ও ফিল্ডার পাবেন ২৫ হাজার টাকা। সব মিলিয়ে সিরিজের প্রাইজ মানি ৩৬ লাখ ৭৫ হাজার টাকা।

সকালে মিরপুরে অনুশীলন করেছে তামিম একাদশ।

আজ দেড়টায় মিরপুরে উদ্বোধনী ম্যাচে খেলতে নামবে মাহমুদউল্লাহ ও নাজমুল একাদশ। তার আগে আজ হোটেল সোনারগাঁয়ে জৈব বলয়ে সিরিজের ট্রফি উন্মোচন করেছেন তিন অধিনায়ক। সেখানে তামিম ইকবাল বলেছেন, সিরিজটা সব খেলোয়াড়ের জন্য বড় সুযোগ, ‘প্রায় ৫০-৬০ ক্রিকেটার এই টুর্নামেন্ট খেলবে। কারও যদি টুর্নামেন্টটা ভালো যায়, সে যদি খুব ভালো ব্যাটিং কিংবা বোলিংয়ে ভালো করে তাহলে তার জন্য জাতীয় দলের দরজা খুলে যেতে পারে। এ রকম যদি কোনো তরুণ ক্রিকেটার থাকে তাহলে তাকে নিয়ে চিন্তা করতে পারে বিসিবি। এটা সবার জন্য ভালো সুযোগ।’

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহর আশা, শিরোপা জিতবে তাঁর দল, ‘আশা আছে চ্যাম্পিয়ন হব। দেশের উঠতি এবং অভিজ্ঞতার দিক দিয়ে যদি বলি সব দিক দিয়েই সেরা খেলোয়াড়রা এখানে খেলছে । এটা নিজেদের প্রমাণের জন্য ভালো প্রতিযোগিতা। অনেক দিন পর যেহেতু আমরা মাঠে নামছি, আমাদের সবার ভেতরই একটা কৌতূহল কাজ করবে। অনুপ্রেরণা বলতে পারেন বা যেভাবেই বর্ণনা করতে চান, তো সেদিক থেকে বলি এটা ভালো একটা দিক।’

মুশফিকুর রহিম খেলছেন নাজমুলের অধিনায়কত্বে।

তরুণ অধিনায়ক নাজমুল হোসেন বললেন, ‘তিনটা দলই খুব ভালো। আমাদের যেটা ইতিবাচক দিক, দলে অনেক তরুণ ক্রিকেটার থাকায় ফিল্ডিং বিভাগটা খুব ভালো হয়েছে। সঙ্গে বোলিং-ব্যাটিং তো আছেই। আশা করছি তিন বিভাগেই ভালো কিছু হবে।’ নাজমুলের দলে খেলছেন অভিজ্ঞ মুশফিকুর রহিম। তাঁকে নিয়ে নাজমুলের মন্তব্য, ‘এটা অনেক বড় বিষয়। তিনি দলে অনেক বড় প্রভাব ফেলতে পারেন। তাঁর কাছ থেকে বড় কিছু আশা করি। আমরা সবাই জানি খেলার প্রতি তিনি কতটা নিবেদিত। আশা করি ভালো কিছুই হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.