কেঁদেছিলেন সুয়ারেজ

বার্সেলোনা ছেড়ে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে আসার প্রক্রিয়াটা সহজ ছিল না লুইস সুয়ারেজের জন্য। বিশেষ করে শেষ সপ্তাহে উরুগুয়ের এই তারকা স্ট্রাইকারকে অনেক আইনের মারপ্যাঁচে আটকাতে চেয়েছিল বার্সার বোর্ড।

তখন একদমই ভেঙে পড়েছিলেন সুয়ারেজ। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে চিলিকে ২-১ গোলে হারানোর পর তিনি বলেন, ‘ঐ সময়টা খুব কঠিন। অনেক কিছুই ঘটছিল। সহ্য করতে না পেরে আমি কান্নায় ভেঙে পড়েছিলাম।’

নতুন ক্লাব অ্যাটলেটিকোর হয়ে শুরুটা দুর্দান্ত করেছেন সুয়ারেজ। তবে, এখানেও তার মানিয়ে নেওয়ার ব্যাপার আছে বলে মানছেন সুয়ারেজ। বললেন, ‘অবশ্যই অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদে আমাকে কিছু জিনিসের সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। তবে এখানে আমি খুব আনন্দে আছি।’

বার্সেলোনার ইতিহাসে তৃতীয় সর্বোচ্চ গোলদাতা সুয়ারেজ। ছয় বছর তিনি ক্লাবটিতে থেকে করেন ১৯৮টি গোল। বিশেষ করে লিওনেল মেসির সঙ্গে বেশ জমেছিল তার জুটি। তাই, বার্সেলোনা-মেসির মধ্যকার টানাপোড়েনও ছুয়ে গেছে তাকে।

মেসির প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি মেসিকে নিয়ে অবাক হইনি। কারণ আমি তাকে খুব ভালো করে চিনি। আমি তার দুঃখটা বুঝতে পারি। সে বুঝতে পেরেছে আমাকে ফর্মের কারণে ক্লাব থেকে বের করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এটা অন্যভাবে করা যেত। সেখানে দীর্ঘ ছয় বছর কাটিয়েছি, এটাও তাকে কষ্ট দিয়েছে। মেসি আমার বন্ধু, সে জানে আমরা সবকিছু কীভাবে সহ্য করেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − one =

Translate »