চতুর্থ পরাজয়ে প্লে অফ শেষ পাঞ্জাবের

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) পরাজয়ের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না কিংস ইলাভেন পাঞ্জাব। নিজেদের ষষ্ঠ ম্যাচে সানরাইর্স হায়দ্রাবাদের কাছে ৬৯ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে পাঞ্জাব।

এটি এবাররে আইপিএলে পাঞ্জবের টানা চতুর্থ পরাজয়।

 

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করতে নেমে ডেভিড ওয়ার্নার ও জনি বেয়ারস্টোর অর্ধশতকে ৬ উইকেটে ২০১ রান করে হায়দ্রাবাদ। জবাবে ১৩২ রানে অলআউট হয় পাঞ্জাব।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে হায়দ্রাবাদকে দারুণ সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার ওয়ার্নার ও বেয়ারস্টো। ঝড়ো গতিতে ১৬০ রানের জুটি গড়েন তারা। দুজনেই তুলে নেন অর্ধশতক। বেয়ারস্টো বেশি আক্রমণাত্মক ছিলেন। ৪০ বলে ৫২ রান করে আউট হন ওয়ার্নার।

অল্পের জন্য সেঞ্চুরি মিস করেন বেয়ারস্টো। ওয়ার্নার যে ওভারে আউট হন সেই ওভারেই আউট হন তিনি। ৭টি চার ও ৬টি ছয়ের সাহায্যে ৫৫ বলে ৯৭ করে আউট হন বেয়ারস্টো। এরপর আর কোনো ব্যাটসম্যান ঝড়ো গতিতে রান তুলতে পারেনি। ৬ উইকেটে ২০১ রান করে হায়দ্রাবাদ।

বড় রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ৩১ রানে ২ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে পাঞ্জব। তবে নিকোলাস পুরানের ঝড়ো ব্যাটিংরে রান রেটের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই রান তুলতে থাকে পাঞ্জাব। ১৭ বলেই অর্ধ শতক তুলে নেন পুরান। কিন্তু তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে পারেননি কেউ। ৩৭ বলে ৭৭ করে আউট হন পুরান।

তার আউটের পরপরই আর বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি পাঞ্জবের ইনিংস। ১৩২ রানেই শেষ হয় তাদের ইনিংস। পুরান ছাড়া লোকেশ রাহুল ও সিমরান সিং দুই অঙ্কের রান করতে পেরেছেন। তারা দুজনেই ১১ রান করেছেন।

হায়দ্রাবাদের রশিদ খান ৩টি, খলিল আহমেদ ও টি নটরাজন ২টি এবং অভিষেক শর্মা ১টি উইকেট নেন। এই জয়ে হায়দ্রাবাদ ছয় ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে। অন্যদিকে ছয় ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার তলানিতে রয়েছে পাঞ্জব। ৬ ম্যাচে ৪ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

Leave a Reply

Your email address will not be published.