ধর্ষণের শাস্তি হোক মৃত্যুদণ্ড

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার তৃতীয় দিনের মতো উত্তাল ছিল রাজধানীসহ সারা দেশ। আন্দোলনকারীরা মানববন্ধন, গণঅবস্থান, বিক্ষোভ-সমাবেশ ও কালো পতাকা মিছিল করেন। এসব কর্মসূচি থেকে তারা ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবনের পরিবর্তে মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানান।

এদিকে সাম্প্রতিক ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের নারীদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান সহিংসতা নিয়ে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। এগুলো গুরুতর অপরাধ এবং মানবাধিকারের মারাত্মক লঙ্ঘন। নোয়াখালীর গৃহবধূকে ধর্ষণ, নির্যাতন ও তার ভিডিও প্রকাশের ঘটনা সামাজিকভাবে নারীর প্রতি বিদ্বেষকে ফুটিয়ে তুলেছে বলে বুধবার জাতিসংঘের এক বিবৃতিতে মন্তব্য করা হয়। নোয়াখালীর ঘটনাটি আবারও প্রমাণ করেছে, এটি কোনো নিছক বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। ঢাকায় জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে বিবৃতিটি প্রকাশ করেছেন। যারা বিচারের দাবিতে পথে নেমেছেন তাদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে মিয়া সেপ্পো বলেন, জাতিসংঘ ন্যায়বিচারের দাবিতে সাধারণ জনগণ এবং সুশীল সমাজের পাশে দাঁড়াচ্ছে। বিবৃতিতে বলা হয়, বাংলাদেশে অব্যাহত ধর্ষণের ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে জাতিসংঘ নারীর প্রতি সহিসংতার মামলাগুলো দ্রুত বিচার আইনে করার জন্য সংস্কারের আহ্বান জানিয়েছে। সিলেট ও নোয়াখালীতে দুই নারীকে ধর্ষণের প্রতিবাদে দেশে ক্ষোভ-বিক্ষোভের মধ্যে উদ্বেগ প্রকাশ করে জাতিসংঘ।

রাজধানীর শাহবাগ ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভে ‘ধর্ষণের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’, ‘যৌন নিপীড়নবিরোধী শিক্ষার্থী জোট’, ‘সেভ আওয়ার উইমেন’, ‘ধর্ষকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’ ও ‘টিম পজিটিভ বাংলাদেশ’সহ বিভিন্ন সংগঠনের কর্মীরা অংশ নেন। নারী নির্যাতনের প্রতিবাদে বরিশালে তরুণীরা সাইকেল র‌্যালি করেন। খুলনা ও রাজশাহীতে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন করা হয়। নোয়াখালীর কোনো আইনজীবী নির্যাতনকারীদের পক্ষে মামলায় দাঁড়াবেন না বলে ঘোষণা দেন। অনেক জায়গায় মুষলধারে বৃষ্টি উপেক্ষা করে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেন। বিক্ষোভে বক্তারা বলেন, ধর্ষকদের কোনো দলীয় পরিচয় নেই। ধর্ষক শুধুই ধর্ষক। তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিয়ে দেশের নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

ঘটনার ৩২ দিন পর রোববার দুপুরে গৃহবধূকে নির্যাতনের ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশ হলে তা ভাইরাল হয়- টনক নড়ে স্থানীয় প্রশাসনের। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত স্থানীয় দেলোয়ার, বাদল, কালাম ও তাদের সহযোগীরা নির্যাতিত গৃহবধূর পরিবারকে কিছুদিন গৃহবন্দি করে রাখে। একপর্যায়ে তার পরিবারকে বসতবাড়ি ছাড়তে বাধ্য করা হয়। পুরো ঘটনা দীর্ঘদিন স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ প্রশাসনের অগোচরে থাকে। বেগমগঞ্জ মডেল থানায় ৭-৮ জন অজ্ঞাতসহ ৯ জনের নামে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন এবং পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা করেছেন নির্যাতিতা।

এছাড়া ভিডিও ভাইরালের ঘটনার মাস্টারমাইন্ড দেলোয়ার ও তার সহযোগী আবুল কালামের বিরুদ্ধেও বেগমগঞ্জ মডেল থানায় মঙ্গলবার রাতে ধর্ষণের মামলা করেন ওই নারী। এর আগেও দু’দফা ধর্ষণ করার অভিযোগে এ মামলা করেন তিনি। পাশাপাশি অস্ত্র ও ককটেল উদ্ধারের ঘটনায় দেলোয়ারের বিরুদ্ধে অস্ত্র এবং বিস্ফোরক আইনে আরও দুটি মামলা করেছে র‌্যাব। এ নিয়ে দেলোয়ার ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে ধর্ষিতা গৃহবধূ বাদী হয়ে পর্নোগ্রাফি, ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন আইনে ৩টি মামলা করেন।

নারায়ণগঞ্জ থেকে অস্ত্রসহ র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার দেলোয়ারকে ১৩ অক্টোবর নোয়াখালীর বিচারিক আদালতে হাজির করা হবে বলে নোয়াখালীর পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন জানান। দেলোয়ার বর্তমানে অস্ত্র মামলায় নারায়ণগঞ্জে পুলিশের রিমান্ডে আছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বেগমগঞ্জ থানার এসআই মোস্তাক আহমেদ জানান, বুধবার দুপুরে নোয়াখালীর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে গ্রেফতার তিন আসামি সাজু, সোহাগ ও নুর হোসেন রাসেলকে হাজির করা হয়। ৩নং আমলি আদালতের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মাসফিকুল হক শুনানি শেষে দুটি পৃথক মামলায় সাজুর ৩ দিন করে ৬ দিন এবং পর্নোগ্রাফি মামলায় রাসেল ও সোহাগের ২ দিন করে মোট ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

তিনি আরও বলেন, মঙ্গলবার রাতে ভিকটিম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে দেলোয়ার হোসেন দেলু ও আবুল কালামের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা করেন। বুধবার বিকালে নির্যাতিতাকে নোয়াখালীর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের জ্যেষ্ঠ হাকিম নবনীতা গুহর আদালতে হাজির করা হয়। জ্যেষ্ঠ হাকিম ২২ ধারায় ওই নারীর জবানবন্দি রেকর্ড করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বেগমগঞ্জ থানার এসআই মোস্তাক আহমেদ জানান, এজাহারভুক্ত পর্নোগ্রাফি ও ধর্ষণ মামলার আসামি ৪ জনসহ ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত অন্যান্য আসামিসহ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, গ্রেফতার আসামিদের জবানবন্দি অনুযায়ী এজাহারের বাইরেও ইউপি সদস্য মোয়াজ্জমসহ ৩ জনকে গ্রেফতার করে পরে মামলায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ধর্ষিতা নারীর জবানবন্দি অনুযায়ী স্থানীয় ইউপি সদস্য মোয়াজ্জম হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়। ভিকটিম ধর্ষণ ও নির্যাতনের বিষয়টি ইউপি সদস্যকে জানানোর পরও তিনি কোনো ব্যবস্থা না নেয়ার বিষয়টি আদালতে ২২ ধারায় দেয়া জবানবন্দিতে স্পষ্ট হলে ইউপি সদস্য মোয়াজ্জমকে অভিযুক্ত হিসেবে গ্রেফতার করা হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা আরও জানান, রিমান্ডে আসামিরা ঘটনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত বলে স্বীকার করার পরও তাদের কাছ থেকে আরও অনেক গুরুত্বপূর্ণ স্বীকারোক্তি পাওয়া গেছে। স্পর্শকাতর মামলাটির অধিকতর তদন্তের স্বার্থে তা এ মুহূর্তে গণমাধ্যমে জানানো যাচ্ছে না। তবে এসব ঘটনার সঙ্গে আরও যারা জড়িত, তাদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ঘটনার শুরুতে ধর্ষিতার করা মামলায় বেগমগঞ্জে মামা বাহিনীর প্রধান দেলোয়ারকে আসামি না করার বিষয়ে জানা যায়, ২২ ধারায় জবানবন্দি দেয়ার সময় ভয়ে এবং নিরাপত্তাহীনতার কারণে নির্যাতিতা দেলোয়ারের নাম উল্লেখ করেননি। ৬ অক্টোবর মানবাধিকার কমিশনের পরিচালক (অভিযোগ-তদন্ত) আল মাহমুদ ফয়জুল কবির তাকে অভয় ও নিরাপত্তার কথাটি নিশ্চিত করলে দেলোয়ার কর্তৃক দু’বার ধর্ষণের বিষয়টি তাকে জানানো হয়। এরপর ওই দিনই দেলোয়ারের বিরুদ্ধে বেগমগঞ্জ মডেল থানায় নির্যাতিতাকে পরপর দু’দিন ধর্ষণ করার বিষয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করা হয়।

বেগমগঞ্জের এখলাসপুরে অলিগলিতে প্রত্যন্ত এলাকায় জনশ্রুতি রয়েছে, দেলোয়ার মামা বাহিনী রাজনৈতিক ও প্রশাসনিক ছত্রছায়ায় থেকে এলাকায় বেআইনি অস্ত্রধারী বাহিনী, মাদক ব্যবসা, ধর্ষণ, খুন, অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়, ছিনতাই, লুট, দাঙ্গা-হাঙ্গামা করে আসছিল। স্থানীয় প্রশাসন জানলেও রাজনৈতিক প্রভাবের কারণে এ বাহিনীর বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেনি।

যুগান্তর ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

ঢাবি : বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ বুধবার দুপুর সোয়া ১২টা থেকে শাহবাগে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সদ্য সাবেক ভিপি নূরুল হক নূরের নেতৃত্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পদত্যাগের দাবিতে শাহবাগ থেকে কালো পতাকা মিছিল নিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দিকে এগোতে চাইলে বেলা সোয়া ১টার দিকে গুলিস্তান জিরো পয়েন্টের কাছে ব্যারিকেড দিয়ে তাদের আটকে দেয় পুলিশ। এ সময় সেখানেই অবস্থান নেন বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীরা।

এর আগে শাহবাগের বিক্ষোভ সমাবেশে নূরুল হক নূর অভিযোগ করে বলেন, প্রত্যেক ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও শ্রমিক লীগের দুর্বৃত্তরা জড়িত। এ সরকার ক্ষমতায় থাকার জন্য সুস্থ ধারার রাজনীতির পরিবেশ ধ্বংস করে বাংলাদেশকে একটি দুর্বৃত্তের রাজ্যে পরিণত করেছে। আজ বিচার ব্যবস্থাকে দলীয়করণ করে জনতার ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার ধ্বংস করা হয়েছে। এ কারণে আজ বিভিন্ন জায়গায় খুন, ধর্ষণ, গুম হচ্ছে। তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে অনতিবিলম্বে পদত্যাগ করার দাবি জানান।

টিম পজিটিভ বাংলাদেশ (টিপিবি) দুপুর ১২টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যে নোয়াখালীসহ সারা দেশে ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের সঙ্গে জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করে। এতে উপস্থিত ছিলেন টিপিবির মুখপাত্র গোলাম রাব্বানী, চলচ্চিত্র অভিনেতা মোহাম্মদ ওমর সানি এবং অভিনেত্রী আরিফা পারভীন জামান মৌসুমীসহ দুই শতাধিক টিপিবির সদস্য। মানববন্ধন থেকে ধর্ষণের বিরুদ্ধে তিনটি দাবি উত্থাপন করেন গোলাম রাব্বানী। দাবিগুলো হল : অপরাধের মাত্রা বিবেচনায় ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে অনতিবিলম্বে বিদ্যমান ১৬০ বছর পুরনো, সেকেলে দণ্ডবিধি আইন সংশোধন; ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতন সংক্রান্ত ফৌজদারি আমলযোগ্য অপরাধে, যে কোনো পর্যায়ে সালিশ-বিচার মীমাংসার নামে প্রহসন বন্ধ করতে কঠোর নির্দেশনা প্রদান এবং ধর্ষণ মামলায় বাদী তথা ভুক্তভোগীর পক্ষে আইনজীবী নিয়োগ ও মামলা পরিচালনার যাবতীয় ব্যয়ভার রাষ্ট্রের মাধ্যমে বহন শতভাগ নিশ্চিত করা।

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে জাতীয় জাদুঘরের সামনে বিক্ষোভ করেছে ‘সেভ আওয়ার উইমেন’ নামের শিক্ষার্থীদের একটি প্ল্যাটফর্ম। এ ছাড়া টানা তৃতীয় দিনের মতো শাহবাগে ‘ধর্ষকের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ’-এর ব্যানারে অবস্থানসহ নানা কর্মসূচি পালন করে কয়েকটি বাম সংগঠন।
মিরপুর : মিরপুরে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। বুধবার বেলা ১১টায় মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বরে কয়েকশ’ শিক্ষার্থী জড়ো হয়ে বিক্ষোভ করেন। এ সময় মিরপুর ১, ২, ১০, ১১, ১২, ১৩ ও ১৪ নম্বরের সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।

উত্তরা : উত্তরায় ছাত্রদের আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে। হাউজ বিল্ডিং চৌরাস্তায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস স্লোগান’ দেয় তারা। ছাত্র আন্দোলনের কারণে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে গাড়ি চলাচল ধীর হওয়ায় দুদিকে প্রায় ১০ কিলোমিটার যানজট হয়।
কোম্পানীগঞ্জ (নোয়াখালী) : কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে আলোক প্রজ্বলন করা হয়েছে। বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় বসুরহাট বাজারের বঙ্গবন্ধু চত্বরে এই কর্মসূচি পালিত হয়। নোয়াখালীর বিভিন্ন উপজেলায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে বিভিন্ন সংগঠন। নোয়াখালী প্রেস ক্লাবের সামনে ধর্ষণ, নিপীড়নবিরোধী মানববন্ধন করে আইনজীবী মঞ্চ নোয়াখালী, সেইভ আওয়ার উইমেন বাংলাদেশ। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে নোয়াখালী জেলা ব্রাইটারস সংঘ, বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশন নোয়াখালী, নোয়াখালী আইডিয়াল পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট, জাতীয় পার্টি জেলা শাখা, সোনাইমুড়ীতে উপজেলা বিএনপি, হাতিয়ার সব সামাজিক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, বেগমগঞ্জে ওয়েলফেয়ার ব্লাড অ্যান্ড সোশ্যাল ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ করে।

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ইপসাসহ বিভিন্ন সংগঠন। বিকালেও একাধিক রাজনৈতিক ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে কর্মসূচি পালন করা হয়। চট্টগ্রামের ২০টিরও বেশি উন্নয়ন সংস্থা ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের নেতারা মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে অংশ নেন।

পটুয়াখালী ও দক্ষিণ : স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইয়ুথ অ্যালায়েন্স অব পটুয়াখালীর (ইয়াপ) ব্যানারে বুধবার সকালে পটুয়াখালী সরকারি মহিলা কলেজ সংলগ্ন সড়কে মানববন্ধন করা হয়। একইদিনে পটুয়াখালী পৌর শহরের বঙ্গবন্ধু চত্বরেও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীরা।

ফরিদপুর : ফরিদপুরে ২০টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের আয়োজনে ধর্ষণের বিরুদ্ধে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ফরিদপুর প্রেস ক্লাবের সামনে মুজিব সড়কে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

বগুড়া : মেয়েদের নিজেকে সুরক্ষিত রাখার কৌশল শিক্ষা বাধ্যতামূলক করাসহ ১৩ দফা দাবিতে প্রতিবাদী সমাবেশ করেছেন বগুড়ার সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বুধবার দুপুরে শহরের সাতমাথায় এই প্রতিবাদী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে জেলার সহস্রাধিক সাধারণ শিক্ষার্থী, সাংবাদিক ও বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের নেতারা অংশ নেন।

রংপুর ও বেরোবি : বুধবার দুপুরে রংপুর মহানগরীর প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, রংপুরের সব স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, জাতীয় যুব সংহতি, ছাত্রফ্রন্টসহ বিভিন্ন সংগঠন। ধর্ষণকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী ও সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্টের রংপুর বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। সারা দেশে অব্যাহত ধর্ষণ, গণধর্ষণ, যৌন নিপীড়ন ও নারীর প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে তারা।

রংপুরে জাতীয় ছাত্রসমাজের মিছিলে পুলিশের বাধা নিয়ে তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে নগরীতে। ওই মিছিল থেকে ছাত্রশিবির সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বরিশাল : বিক্ষোভ মিছিল, অবস্থান কর্মসূচি ও প্রতিবাদী মানববন্ধন পালনের মাধ্যমে নগরী উত্তাল করে তোলেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। ধর্ষণের প্রতিবাদে বরিশাল নগরীতে সাইকেল র‌্যালি করেছেন একদল তরুণী। লাল-সবুজ সোসাইটির আয়োজনে বুধবার সকাল সাড়ে ৯টায় অশ্বিনী কুমার হল চত্বর থেকে এ সাইকেল র‌্যালি বের করা হয়। বিভিন্ন স্কুল ও কলেজের ১৬ শিক্ষার্থী এতে অংশ নেন। নগরীতে ইশরাত জাহান সুরাইয়া নামে এক কলেজছাত্রী প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেছেন।

খুলনা : খুলনায় গণস্বাক্ষর ও ধর্ষকদের বিরুদ্ধে শপথবাক্য উচ্চারিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় নগরীর শিববাড়ী মোড়ে জনউদ্যোগ, খুলনা ও গুণিজন স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

রাজশাহী : রাজশাহীতে মানববন্ধন-সমাবেশ ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালিত হয়েছে। দুই ঘণ্টাব্যাপী সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে সাধারণ শিক্ষার্থীরা এ কর্মসূচি পালন করেন।

নেত্রকোনা : নেত্রকোনা শহরের ছোটবাজার এলাকায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনের সড়কে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মহুয়া ব্লাড ব্যাংক পরিবারের উদ্যোগে মানববন্ধন করা হয়েছে।

নড়াইল : নড়াইলে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। নড়াইল প্রেস ক্লাবের সামনে জেলা যুব মহিলা লীগ এ কর্মসূচির আয়োজন করে।

জয়পুরহাট : জয়পুরহাট শহরের প্রধান সড়কের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ চত্বরে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নারী পক্ষ, পাশে আছি আমরা, কালের কণ্ঠ শুভ সংঘ, গ্রিন অ্যান্ড ক্লিন, মানবিক ছায়া, বহ্নিশিখাসহ বিভিন্ন সামাজিক ও নারীবাদী সংগঠন এ মানববন্ধনে অংশ নেয়।

বান্দরবান : বান্দরবানে মৌন মিছিল ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সম্মিলিত সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে এ মানববন্ধন পালন করা হয়।

নওগাঁ : নওগাঁয় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বুধবার সকালে শহরের মুক্তির মোড়ে প্রধান সড়কে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে লক্ষ্মীপুর প্রেস ক্লাবের সামনে জেলা ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের ব্যানারে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন করা হয়।

গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জে মানববন্ধন ও অবস্থান ধর্মঘট করেছে পিস ওয়ার্ল্ড ফাউন্ডেশন নামে একটি সংগঠন। স্থানীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

চাঁদপুর ও ফরিদগঞ্জ : চাঁদপুরে জেলা যৌন হয়রানি নির্মূলকরণ নেটওয়ার্কের আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকালে শহরের জোড়পুকুর পাড়ার ওয়াইডব্লিউসিএ ও ট্রান্সটেড বাংলাদেশের সহযোগিতায় এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের গেটের সামনে ফরিদগঞ্জ প্রেস ক্লাব, ফরিদগঞ্জ স্টুডেন্টস কমিউনিটিসহ বিভিন্ন সংগঠন পৃথকভাবে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে।

শেরপুর : শেরপুরে মুখে কালো মাস্ক পরে প্রতিবাদী সমাবেশ হয়েছে। টাউনের চকবাজার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্বরে নাগরিক প্ল্যাটফরম জনউদ্যোগ শেরপুর কমিটি, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ ও রুরাল ডেভেলপমেন্ট সংস্থা আরডিএস যৌথভাবে এ সমাবেশের আয়োজন করে।

কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ায় মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে বিভিন্ন সংগঠন। পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখা ও ফেয়ার এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

গাইবান্ধা : ছাত্র ইউনিয়ন গাইবান্ধা জেলা সংসদের উদ্যোগে শহরের ১নং রেলগেটে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের উলিপুরে ১২টি সংগঠনের যৌথ আয়োজনে ধর্ষণবিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌর শহরের গবা মোড়ে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষ এ মানববন্ধনে অংশ নেন।

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) : কালীগঞ্জে ছাত্রলীগের মানববন্ধন ও আলোক প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী, হবিগঞ্জের মাধবপুর, গাজীপুরের কালিয়াকৈর, সিলেটের গোলাপগঞ্জ, পটুয়াখালীর দশমিনা, কুমিল্লার ব্রাহ্মণবাড়া, বরিশালের আগৈলঝাড়া, কুমিল্লার দেবিদ্বার, ময়মনসিংহের গৌরীপুর, পাবনার চাটমোহর, শেরপুরের শ্রীবরদী, নোত্রকানোর কলমাকান্দা, পটুয়াখালীর দুমকি, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী, যশোরের কেশবপুর, কুমিল্লার দাউদকান্দি, দিনাজপুরের বীরগঞ্জ, পটুয়াখালীর দশমিনা, ময়মনসিংহের নান্দাইল প্রতিনিধি প্রতিবাদ বিক্ষোভ ও মানববন্ধনের প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন।

কুষ্টিয়া : কুষ্টিয়ায় মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে বিভিন্ন সংগঠন। পাবলিক লাইব্রেরি মাঠে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলা শাখা ও ফেয়ার এ মানববন্ধনের আয়োজন করে।

গাইবান্ধা : ছাত্র ইউনিয়ন গাইবান্ধা জেলা সংসদের উদ্যোগে শহরের ১নং রেলগেটে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উলিপুর (কুড়িগ্রাম) : কুড়িগ্রামের উলিপুরে ১২টি সংগঠনের যৌথ আয়োজনে ধর্ষণবিরোধী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌর শহরের গবা মোড়ে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষ এ মানববন্ধনে অংশ নেন।

কালীগঞ্জ (গাজীপুর) : কালীগঞ্জে ছাত্রলীগের মানববন্ধন ও আলোক প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী, হবিগঞ্জের মাধবপুর, গাজীপুরের কালিয়াকৈর, সিলেটের গোলাপগঞ্জ, পটুয়াখালীর দশমিনা, কুমিল্লার ব্রাহ্মণবাড়া, বরিশালের আগৈলঝাড়া, কুমিল্লার দেবিদ্বার, ময়মনসিংহের গৌরীপুর, পাবনার চাটমোহর, শেরপুরের শ্রীবরদী, নোত্রকানোর কলমাকান্দা, পটুয়াখালীর দুমকি, কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরী, যশোরের কেশবপুর, কুমিল্লার দাউদকান্দি, দিনাজপুরের বীরগঞ্জ, পটুয়াখালীর দশমিনা, ময়মনসিংহের নান্দাইল প্রতিনিধি প্রতিবাদ বিক্ষোভ ও মানববন্ধনের প্রতিবেদন পাঠিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 2 =

Translate »