দেহ ব্যবসায় বাধ্য, ৯৯৯-এ ফোনে রক্ষা পেলো দুই তরুণী

৯৯৯-এ ফোন পেয়ে চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়া থানাধীন কল্পলোক আবাসিক এলাকার একটি বাসা থেকে দুই তরুণীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। পাশাপাশি এক নারীসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

 

মঙ্গলবার দুই তরুণীকে উদ্ধার ও দুইজনকে আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দিন।

 

ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, সোমবার বিকেলে এক তরুণী ৯৯৯-এ ফোন করে জানান, তাকে ও তার ফুপাতো বোনকে একটি বাসায় আটকে রাখা হয়েছে। পরে কলটি বাকলিয়ার ওসির নাম্বারে সংযুক্ত করা হয়। ভুক্তভোগী তরুণী বাসার ঠিকানা বলতে পারছিলেন না। পরে পুলিশ চেষ্টা করে তাদের অবস্থান শনাক্ত করে দুই ভুক্তভোগীকে উদ্ধার করে।

 

ওসি মো. নেজাম উদ্দিন জানান, ভুক্তভোগী দুই তরুণী একটি কর্ণফুলী ইপিজেড কেনপার্ক বাংলাদেশ এ্যাপারেল প্রাইভেট লিমিটেডে চাকরি করতেন। করোনা মহামারির সময় তারা চাকরি হারান। ওই গার্মেন্টসের একজন তাদেরকে চাকরির জন্য রাকিব নামে একজনের সঙ্গে যোগাযোগ করিয়ে দেন। রাকিব ও শওকত আলী খান নামে দুইজন তাদের চাকরি দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কল্পলোক আবাসিক এলাকার একটি বাসায় নিয়ে যায়। পরে সেখানে দুই তরুণীকে আটকে রেখে দেলোয়ার হোসেন ও শাহীন আক্তারসহ অন্যরা দেহ ব্যবসায় বাধ্য করেন।

 

ওসি বলেন, রাকিব ও শওকত আলী খান বাসাটি ভাড়া নিয়ে নারীদের অসহায়ত্বে সুযোগ নিয়ে ওই বাসায় এনে দেহ ব্যবসায় বাধ্য করেন বলে জানতে পেরেছি। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.