করোনা আক্রান্ত তানজিন তিশা

কোভিড-১৯ পরীক্ষা করার দুদিন আগে থেকেই তানজিন তিশার জ্বর। স্বাদ-ঘ্রাণ পাচ্ছিলেন না। এদিকে হাতে তাঁর বেশ কয়েকটি কাজ। লক্ষণে করোনা সন্দেহ হওয়ায় ভেবেছেন পরিবার ও সহকর্মীদের কথা। নিজ উদ্যোগে হাসপাতালে গিয়ে কোভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন তিনি। গতকাল রোববার রাতে যখন সেই পরীক্ষার রিপোর্ট হাতে পেলেন, জানতে পারেন তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত।

সোমবার বিকেলে করোনা আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত করেছেন তানজিন তিশা। তিনি বলেন, ‘এমনি ভালো আছি। জ্বর, খাবারের স্বাদ না পাওয়া ছাড়া আর কোনো সমস্যা হচ্ছে না। হালকা কাশিও আছে। টেস্টের রেজাল্ট পাওয়ার পর থেকেই আইসোলেশনে আছি। শুটিং ও সব কাজ বাতিল করেছি।

তানজিন তিশা জানান, ‘একজন অভিনয়শিল্পী হিসেবে দায়িত্বশীলতার পরিচয় দেওয়া আমার দায়িত্ব। সেটা ভেবে যখনই জ্বরাক্রান্ত হই এবং কোনো খাবারের স্বাদ পাচ্ছিলাম না, মনে মনে ভাবলাম, এটা হয়তো করোনারই লক্ষণ।’ তিশা বলেন, ‘আমি যেহেতু নিয়মিত কাজ করছি এবং সামনে অনেকগুলোর কাজের ব্যাপারে কথাবার্তাও চূড়ান্ত হয়ে আছে, তাই হয়তো অনেকের সংস্পর্শে যেতে হবে। শুটিং করলে আমার সংস্পর্শেও অনেকে আসবেন। তাই ভাবলাম, কাজ শুরু করার আগে আমার নিজের, পরিবারের এবং সহকর্মীদের নিরাপত্তার কথা ভেবে কোভিড-১৯ টেস্ট করা দরকার। উপসর্গ নিয়ে নিজে থেকেই দ্রুত ছুটে যাই হাসপাতালে, পরীক্ষা করাই। এরপর জানতে পারি, আমি করোনা আক্রান্ত। বাসার সবাইকে জানিয়ে আমি হাসপাতাল থেকে ফিরে আইসোলেশনে চলে যাই। বাসার মধ্যে আমি আমার রুমে একা আছি। বাইরে থেকে মা খাবার দিয়ে যাচ্ছেন।’

তানজিন তিশা। ছবি: সংগৃহীত

তানজিন তিশা। ছবি: সংগৃহীত

ভক্ত, শুভাকাঙ্ক্ষী ও বিনোদন অঙ্গনের সহকর্মীদের আশ্বস্ত করে তিশা বলতে চান, তিনি ভালো আছেন। কোনো সমস্যা হচ্ছে না। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলছেন। নিয়ম মেনে খাওয়াদাওয়া করছেন। ১৪ দিনের আইসোলেশন শেষে দ্বিতীয়বার টেস্ট করাবেন তিনি। নেগেটিভ রেজাল্ট হাতে পেলে তবেই আবার কাজে ফিরবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *