ট্রাম্প, সৌদি বাদশা ও যুবরাজ সালমানের ফাঁসির আদেশ

বোমা মেরে শিশু হত্যার দায়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প, সৌদি রাজা সালমান বিন আব্দুল আজিজ ও যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমানসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দিয়েছে ইয়েমেনের একটি আদালত।

২০১৮ সালের ৯ আগস্ট ইয়েমেনের সা’দা প্রদেশের যাহিয়ান শহরে স্কুল বাসে সৌদি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর বিমান হামলায় ৫৫ শিশুর মৃত্যু হয়। সেখানে আহত হয় আরও ৭৭ শিশু। সৌদি জঙ্গিবিমান থেকে স্কুল বাসে যে বোমা মারা হয়েছিল তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সরবরাহের প্রমাণিত হওয়ায় এ রায় দেয়া হয়েছে বলে জানায় ইয়েমেনের আদালত।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, ইয়েমেনের বিচারক রিয়াদ আর রাজামির নেতৃত্বাধীন আদালত এই হামলার পেছনে ট্রাম্পসহ ১০ জনের সম্পৃক্ততার বিষয়ে নিশ্চিত হতে পেরেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট, সৌদি রাজা ও যুবরাজ ছাড়া আরও যাদের বিরুদ্ধে ফাঁসির আদেশ দেওয়া হয়েছে তাদের কয়েকজন হলেন সৌদি প্রিন্স তুর্কি বিন বান্দার বিন আব্দুল আজিজ, সাবেক মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস মেটিস, সাবেক ইয়েমেনি প্রেসিডেন্ট আব্দরাব্বু মানসুর হাদি। একইসঙ্গে হতাহত শিশুদের অভিভাবকদেরকে ১০ বিলিয়ন ডলার জরিমানা পরিশোধ করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক।

স্কুল বাসে বোমা হামলার পর সৌদি আগ্রাসী বাহিনীর মুখপাত্র তুর্কি আল মালিকি দাবি করেছিলেন, এটি সামরিক পদক্ষেপ এবং এটি বৈধ।

২০১৫ সালের মার্চ থেকে ইয়েমেনের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক অবরোধ আরোপের পর বিমান হামলা শুরু করে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও আরও কয়েকটি দেশ। এ পর্যন্ত আগ্রাসনে ১৪ হাজারের বেশি ইয়েমেনি নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত ও বাস্তুহারা হয়েছেন লাখ লাখ মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *