বাড়িতে মাদক পৌঁছে দিতেন রিয়া: রাকুলপ্রীতের স্বীকারোক্তি

পাকাপোক্তভাবে ফেঁসে গেলেন প্রয়াত সুশান্ত সিং রাজপুতের বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তী। অভিনেত্রী রাকুলপ্রীত সিং স্বীকার করেছেন, তাকে মাদক সরবরাহ করতেন রিয়া।

শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)’র অফিসে হাজির হন বলিউড অভিনেত্রী রাকুলপ্রীত সিং ও দীপিকা পাড়ুকোনের ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশ।

রাকুলপ্রীতকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ডেকে পাঠানো হলেও সমন পাননি বলে জানান অভিনেত্রী। বুধবার রাতে হায়দ্রাবাদ থেকে মুম্বাই ফিরে আসেন রাকুল। সমন পাওয়ার কথা অস্বীকার করায় এনসিবি বৃহস্পতিবার দ্বিতীয়বার সমন পাঠায় রাকুলকে। সেই সমন পাওয়ার কথা স্বীকার করে নেন অভিনেত্রী।

শুক্রবার এনসিবি প্রায় চার ঘণ্টা ধরে রাকুলপ্রীত সিংকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। সংবাদমাধ্যম পিঙ্কভিলা জানায়, জিজ্ঞাসাবাদে বলিউড ও দক্ষিণী অভিনেত্রী রাকুলপ্রীত স্বীকার করেন, রিয়া চক্রবর্তী তার বাড়িতে মাদকদ্রব্য পৌছে দিতেন। তবে রাকুল নিজে কখনও নিষিদ্ধ মাদক গ্রহণ করেননি বলে দাবি করেছেন অভিনেত্রী। এমনকি তার বাড়ি থেকে যে মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়েছে সেটা তার নয় বলে দাবি রাকুলের।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আরও জানায়, রিয়া চক্রবর্তীর সঙ্গে মাদক বিষয়ক হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথনের কথা স্বীকার করেছেন রাকুলপ্রীত। ওই চ্যাটিংয়ে রিয়া নিষিদ্ধ মাদকের খোঁজ করেছিলেন। এই চ্যাটিংয়ের সত্যতা স্বীকার করেছেন রাকুল।

এছাড়া সমন না পাওয়ার অভিযোগ করায় রাকুলকে তিরস্কার করেছে এনসিবি। একজন এনসিবি কর্মকর্তা সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘তার সমন জারি করার পর বিভিন্ন উপায়ে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। এমনকি ফোনেও জানানো হয়েছে, যদিও তিনি তখন উপস্থিত ছিলেন না। এরপরও তার কাছ থেকে কোনও সাড়া পাওয়া যায়নি। ’

রাকুলের এই স্বীকারোক্তির পর এবার ‘কোথাকার জল কোথায় গিয়ে গড়ায়’ সেটাই এখন দেখার বিষয়।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মাদকাসক্তি অভিযোগের সূত্র ধরে বলিউডের মাদকযোগ তদন্ত চলছে। এনসিবির সমন পাওয়া সাম্প্রতিক বলিউড তারকাদের মধ্যে আছেন দীপিকা পাড়ুকোন, রাকুলপ্রীত, সারা আলী খান, সিমোন ও শ্রদ্ধা কাপুর।

ইতোমধ্যে এনসিবি’র তলব পেয়েই গোয়ায় শাকুন বাত্রার সিনেমার কাজ বন্ধ করে মুম্বাই ফিরেছেন দীপিকা। বৃহস্পতিবার রাত ন’টা নাগাদ রণবীর সিং, কারিশমা প্রকাশ ও তিন আইনি পরামর্শদাতাকে নিয়ে চার্টার্ড ফ্লাইটে বাণিজ্যনগরীতে পৌঁছান তিনি। মাদক নিয়ে দীপিকা ও কারিশমার মধ্যে যে হোয়াটসঅ্যাপ কথোপকথন হয়েছে, সে ব্যাপারেই সম্ভবত তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে এনসিবি।

এদিকে, গোয়া থেকে মা অমৃতা সিং ও ভাই ইব্রাহিমকে নিয়ে বৃহস্পতিবার মুম্বাই ফেরেন সারা আলী খানও। তদন্তকারীদের দাবি, অনুজ কেশওয়ানি নামে মাদক সরবরাহকারী জানিয়েছে, তার সঙ্গে সারা আলী ও শ্রদ্ধা কাপুর দু’জনেরই যোগাযোগ ছিল। দু’জনকেই ‘উইড’ সরবরাহ করেছিলেন তিনি।

এছাড়াও তলব করা হয়েছে ধর্মা প্রোডাকশনসের ক্ষিতিজ রবিপ্রসাদকে। ক্ষিতিজের সূত্র ধরে এরপর ডাক আসতে পারে ধর্মা প্রোডাকশনসের কর্ণধার ও বলিউডের প্রভাবশালী নির্মাতা করণ জোহরের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.