দীপিকাকে এনসিবির জেরা, পাশে নেই রণবীর

মাদক কেলেঙ্কারিতে একের পর এক বলিউড তারকার নাম উঠে আসছে। ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর (এনসিবি) তদন্তে এমন তারকাদের নাম উঠে আসছে যে শুনে চোখ কপালে উঠে যায়। ইতিমধ্যে মাদক কেলেঙ্কারিতে জড়িত থাকায় বলিউড অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে মাদক কেলেঙ্কারিতে এ মুহূর্তে সবচেয়ে অবাক করার মতো নামটি হলো দীপিকা পাড়ুকোন।

 সকাল ১০টায় সংবাদমাধ্যমকে এড়িয়ে দক্ষিণ মুম্বাইয়ে এনসিবির গেস্ট হাউসে পৌঁছান দীপিকা

সকাল ১০টায় সংবাদমাধ্যমকে এড়িয়ে দক্ষিণ মুম্বাইয়ে এনসিবির গেস্ট হাউসে পৌঁছান দীপিকা

সংশ্লিষ্ট সংস্থা থেকে আগেই সমন পাঠানো হয়েছিল। মানসিক অবসাদের কারণ দেখিয়ে দীপিকার পক্ষে আবেদন করা হয়েছিল, যেন তাঁকে সশরীর জেরা থেকে দূরে রাখা হয়। সে আবেদন টেকেনি। তাই বাধ্য হয়ে অবশেষে আজ দীপিকা পাডুকোন হাজির হলেন তদন্ত কমিটির সামনে। সকাল ১০টায় সংবাদমাধ্যমকে এড়িয়ে দক্ষিণ মুম্বাইয়ে এনসিবির গেস্ট হাউসে পৌঁছান দীপিকা।

ভারতীয় বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলের খবরে দেখা যায়, মুখে মাস্ক পরে দীপিকা তাঁর কালো রঙের মহারাষ্ট্র ০১ডিবি১৪৮৯ নম্বর গাড়ি থেকে নেমে সোজা ঢুকে পড়ছেন জিজ্ঞাসাবাদকক্ষের দিকে। তাঁর সঙ্গে ছিলেন না স্বামী রণবীর সিং। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে দীপিকাকে ভেতরে নিয়ে যান নিরাপত্তাকর্মীরা। দীপিকা পাড়ুকোনকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। দলের নেতৃত্বে রয়েছেন মামলার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কে পি এস মালহোত্রা। উপস্থিত রয়েছেন নারী কর্মকর্তাও।

রাকুলের দাবি যে এই মাদক রিয়া চক্রবর্তী তাঁকে রাখতে দিয়েছিলেন। এনসিবি এই বলিউড নায়িকার বাসা থেকে মাদক উদ্ধার করেছে।

দীপিকাকে জেরা, পাশে নেই রণবীর

দীপিকাকে জেরা, পাশে নেই রণবীর
ইনস্টাগ্রাম

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত খবরের সূত্রে জানা গেছে, আজ দুপুরের পর যেকোনো সময় অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুর ও সারা আলী খানও আসবেন এনসিবির কার্যালয়ে। গতকাল শুক্রবার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় রাকুলপ্রীত সিং, দীপিকার ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশ এবং ধর্ম প্রোডাকশনসের কার্যনির্বাহী প্রযোজক খিতিজ রবিকে।

প্রায় চার ঘণ্টা তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ চলে। আর রাকুল নাকি এনসিবির জেরার মুখে তাঁর বাসায় মাদক রাখার কথা স্বীকার করেছেন। রাকুলের দাবি যে এই মাদক রিয়া চক্রবর্তী তাঁকে রাখতে দিয়েছিলেন। এনসিবি এই বলিউড নায়িকার বাসা থেকে মাদক উদ্ধার করেছে।

গত সপ্তাহে ভারতের শীর্ষস্থানীয় এক চ্যানেল তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, ড্রাগ চ্যাটে ‘ডি’, অর্থাৎ দীপিকা ড্রাগ চেয়ে পাঠিয়েছেন ‘কে’-এর কাছে। কে এই ‘কে’?

এর আগে এনসিবির ড্রাগ চ্যাট তদন্তে দেখা গেছে ‘এন’, ‘জে’, ‘এস’, ‘ডি’, ‘আর’, ‘কে’র মধ্যে মাদক পরিবহন নিয়ে কথাবার্তা হয়েছে। আর এই ‘ডি’ অক্ষরের পেছনে দীপিকারই নাম প্রকাশ করা হয়েছে।

গত সপ্তাহে ভারতের শীর্ষস্থানীয় এক চ্যানেল তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, ড্রাগ চ্যাটে ‘ডি’, অর্থাৎ দীপিকা ড্রাগ চেয়ে পাঠিয়েছেন ‘কে’-এর কাছে। কে এই ‘কে’? এই ‘কে’-এর নাম কারিশমা, যিনি ট্যালেন্ট ম্যানেজমেন্ট এজেন্সিতে কাজ করেন। দীপিকার জবাবে কারিশমা জানান, ‘আছে, কিন্তু আমার বাসায়। আমি এখন বান্দ্রায়।’ কারিশমা আরও বলেছেন, ‘যদি বলেন তো অমিতকে জিজ্ঞেস করতে পারি।’ দীপিকা পাল্টা জবাব দেন, ‘হ্যাঁ, প্লিজ।’ কারিশমা উত্তরে বলেন, ‘অমিতের কাছে আছে, সে নিয়ে যাচ্ছে।’ দীপিকা বলেন, ‘হ্যাশ, বিড না।’ এসব সূত্রে আজ দীপিকাকে যেতে হলো তদন্ত কমিটির সামনে।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, এনসিবি হৃতিক রোশন, রণবীর সিং, শহীদ কাপুর আর অর্জুন রামপালকে সমন পাঠাতে পারে

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, এনসিবি হৃতিক রোশন, রণবীর সিং, শহীদ কাপুর আর অর্জুন রামপালকে সমন পাঠাতে পারে
ইনস্টাগ্রাম

প্রসঙ্গত, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর পক্ষে মাদক নিয়ে তদন্ত চলাকালীন দুটো এফআইআর করা হয়েছে। এর আগে ইডির বাজেয়াপ্ত করা রিয়ার ফোনে মাদক চ্যাটের জন্য রিয়াসহ মোট ছয়জনের নামে এফআইআর করা হয়।

বিজ্ঞাপন

এনসিবির তালিকায় মুম্বাইয়ের বিনোদনজগতের ৫০ জনের বেশি অভিনয়শিল্পীর নাম আছে। বেরিয়ে আসছে আরও অনেকের নাম। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, এনসিবি হৃতিক রোশন, রণবীর সিং, শহীদ কাপুর আর অর্জুন রামপালকে সমন পাঠাতে পারে।

এনসিবি হৃতিক রোশন, রণবীর সিং, শহীদ কাপুর আর অর্জুন রামপালকে সমন পাঠাতে পারে

এনসিবি হৃতিক রোশন, রণবীর সিং, শহীদ কাপুর আর অর্জুন রামপালকে সমন পাঠাতে পারে
ইনস্টাগ্রাম

জানা গেছে, এই সংস্থা বলিউড ড্রাগ মাফিয়া নেক্সসের সঙ্গে হৃতিকের সংযোগ নিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারে। ২০১৭ সালে এই বলিউড সুপারস্টার শারীরিক অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে বিরতি নিয়েছিলেন। আর ওই সময় হৃতিক লীলাবতী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন।

এ ঘটনার দিকে যাঁরা তাকিয়ে আছেন, তাঁরা আছেন আরও কত কী দেখতে হয় সেই অপেক্ষায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *