ধুনটে বখাটে যুবকের ধর্ষণে ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা প্রতিবন্ধী কিশোরী

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় বিদ্যুত হোসেন (২৪) নামে এক যুবকের ধর্ষণের শিকার এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী সাত মাসের অন্তঃসত্বা হয়েছে। এ ঘটনায় শুক্রবার সকালে বিদ্যুতকে আটক করেছে পুলিশ। বিদ্যুত উপজেলার চৌকিবাড়ি গ্রামের শাহ কামালের ছেলে।

জানা গেছে, ধর্ষণের শিকার মেয়েটির বাবা পেশায় একজন দর্জি। তিনি বাড়িরে অদূরে দিঘলকান্দি তিনমাথা বাজার এলাকায় টেইলার্সে পোশাক তৈরি করেন। প্রায় ১৫ বছর আগে ওই মেয়েটিকে দত্তক নেন টেইলার্সের মালিক। বর্তমানে মেয়েটির বয়স কমপক্ষে ১৬ বছর। প্রায় ৭ মাস আগে মেয়েটির বাবা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কাজ করতে যান এবং মা যান পাশের বাড়ি বেড়াতে। এ সুযোগে প্রতিবেশী যুবক বিদ্যুত হোসেন মেয়েটিকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ করেন।

এরপর ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ না করার জন্য মেয়েটিকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ওই বাড়ি থেকে কেটে পড়েন বিদুত। এ কারণে মেয়েটি এ বিষয়টি প্রকাশ করেনি। এ অবস্থায় মেয়ের শারীরিক পরিবর্তন দেখে মা-বাবা তাকে জিজ্ঞাস করলে ধর্ষণের বিষয়টি প্রকাশ করে। পরে চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী মা-বাবা জানতে পারেন মেয়েটি সাত মাসের অন্তঃসত্বা।

এদিকে গ্রামের কতিপয় মাতব্বর এ বিষয়টি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেন। এ বিষয়টি মিমাংসার জন্য শুক্রবার সন্ধ্যায় উভয় পক্ষ বৈঠকে বসার কথা ছিল। কিন্ত থানা পুলিশ বিষয়টি জানতে পেরে শুক্রবার সকালে অভিযান চালিয়ে বিদ্যুতকে তার বাড়ি থেকে আটক করে। এ ছাড়া ধর্ষণে অন্তঃসত্বা মেয়ে ও তার বাবাকে থানা হেফাজতে নেন পুলিশ।

ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের দায় স্বীকার করেছে বিদ্যুত হোসেন। এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *