পাকিস্তানে মার্বেল খনি ধসে নিহত ১৭

পাকিস্তানের প্রত্যন্ত অঞ্চলে সোমবার (৭ সেপ্টেম্বর) মার্বেল পাথরের খনি ধসে অন্তত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এখনও ১১ জন নিখোঁজ বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে পুলিশ।

পাথর ভাঙতে শক্তিশালী বিস্ফোরকক ব্যবহারের কারণে ওই অঞ্চলের ভূখণ্ড অস্থিতিশীল হয়ে পড়েছিল বলে ধারণা পুলিশের।

নিখোঁজদের উদ্ধারে উদ্ধারকর্মীদের সঙ্গে যোগ দিয়েছেন পাকিস্তানি সেনারা। মঙ্গলবার তারা ধ্বংসস্তূপ সরিয়ে জীবিতদের খোঁজ করছেন তারা।

পাকিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলের মোহমান্দের জিয়ারত এলাকায় আফগানিস্তান সীমান্তে অবস্থিত খনিটি। ওই এলাকাটি গুনগত সাদা মার্বেল খনির জন্য বিখ্যাত, যা দেশেও বিক্রির পাশাপাশি বিদেশে রপ্তানি করা হয়।

মোহমান্দ জেলা পুলিশের প্রধান তারিক হাবিব জানান, সোমবার সন্ধ্যায় ধসের সময় খনিতে কাজ করছিলেন ৪০ থেকে ৫০ জন শ্রমিক। তিনি বলেছেন, ‘সাধারণত এই মার্বেল খনিগুলোতে অসংখ্য শ্রমিক কাজ করে। কিন্তু সৌভাগ্যবশত ওই সময় অধিকাংশ শ্রমিক কাজ শেষ করে বাসায় ফিরে গিয়েছিল।’

এ ঘটনায় ৯ জন আহত হয়েছেন। হতাহতের সংখ্যা এখনও অস্পষ্ট। কারণ ঘটনার পর পর কিছু পরিবার সরাসরি তাদের প্রিয়জনের মৃতদেহ নিয়ে গেছে বলে জানান ঘটনাস্থল থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ঘালানাই জেলার সদর হাসপাতালের ডাক্তার সামীন শিনওয়ারি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twenty + eight =

Translate »