মিনি সুন্দরবন

সুন্দরবনের মূল ভূখণ্ড থেকে প্রায় শত কিলোমিটার দূরে বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার সীমান্ত ঘেঁষে বয়ে গেছে চিত্রা নদী। এই নদীর দুপাড়ে জেগে ওঠা বিস্তীর্ণ চর ও আশপাশের গ্রাম জুড়ে প্রাকৃতিক ভাবে জন্ম নিয়েছে সুন্দরবনের বিভিন্ন গাছপালা। চিত্রার দুপাড়ে এখন যতদূর চোখ যায় শুধু সবুজের হাতছানি। প্রাকৃতিক ভাবে গড়ে ওঠা এ বনকে ঘিরে দিন দিন বাড়ছে দর্শনার্থীদের ভিড়। বিশেষ করে বনজুড়ে গড়ে উঠেছে পাখিদের অভয়ারণ্য। বর্তমানে ভ্রমণ পিপাসুরাও ছুটে আসছেন এখানকার মনোরম প্রকৃতির ছোঁয়া পেতে। প্রকৃতিপ্রেমীদের মতে এ বনকে যথাযথ ভাবে সংরক্ষণ করলে এখানে রয়েছে অপার সম্ভাবনা।

চিত্রা পাড়ের বন সম্পর্কে কথা হয় স্থানীয়দের সাথে। তারা জানান, নদীর পানিতে ভেসে আসা বীজ থেকে এ বনের সৃষ্টি হয়েছে। সুন্দর বনের বিভিন্ন গাছের বীজ জোয়ারের পানিতে ভেসে আসে। এসব বীজের মাধ্যমে চরের জমিতে গাছপালার জন্ম নিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশের পর থেকে এ বনের পরিচিতি দেশব্যাপি ছড়িয়ে পড়ে। বাড়তে থাকে লোক সমাগম।

সুন্দরী, কেওড়া, গরান, গোলপাতাসহ অসংখ্য প্রজাতির গাছ মাথা তুলে জানান দিচ্ছে নতুন বনের উপস্থিতি। পাশাপাশি অন্যান্য প্রাণিদের আবাসস্থল এই বনে। প্রতিদিনই শত শত লোক এসে ভিড় জমাচ্ছে এখানে। চিত্রা পাড়ের মিনি সুন্দরবনে হাজার-হাজার পাখিদের আশ্রয় স্থল গড়ে উঠছে। সন্ধ্যার নামার সাথে সাথে পাখিদের কলকাকলিতে মুখর হয়ে ওঠে বনের চারিপাশ। পরিযায়ী পাখি থেকে শুরু করে নানা পাখিদের ওড়াউড়ি মুগ্ধ করে তোলে দর্শনার্থীদের। মনোরম দৃশ্য দেখার জন্য অনেকে লাইন দেন বনের কাছে এসে।

ঝালডাঙ্গা গ্রামের শেখ কেসমত আলী, খিলিগাতী গ্রামের পাখিপ্রেমী মুকুল চন্দ্র ঢালীসহ অনেকে জানান, প্রতিদিন এখানকার বনে পাখি দেখতে শত শত লোক ছুটে আসে। এখানকার পাখিদের নিরাপত্তা ও বনটি সংরক্ষণ করতে পারলে পর্যাটন শিল্পে অপার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

প্রাণি ও পাখি বিশেষজ্ঞ শরীফ খানের সাথে কথা হলে তিনি জানান, সুন্দরবনের আয়োতন দিন দিন কমে আসছে। এমতো অবস্থায় চিত্রাপাড়ে নতুন এ বনটি ঘিরে আশার আলো দেখা যাচ্ছে। সর্ব প্রথমে পংকজ মণ্ডল এ বনটির নানা তথ্য তুলে ধরে দেশবাসিকে একটি সুখবর পৌঁছে দিয়েছেন। এখানকার বন্যপ্রাণি ও পাখিদের রক্ষার জন্য সকলকে এগিয়ে আসতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মারুফুল আলম জানান, বনটি তিনি শীঘ্রই পরিদর্শন করবেন। বনের প্রাণি ও পাখিদের রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × four =

Translate »