ভারতে ভয় নেই ভাইরাসেও, কোভিড পজিটিভ তরুণীকে অ্যাম্বুল্যান্সে ধর্ষণ চালকের!

প্রমাণ হলে ফাঁসি বা যাবজ্জীবন। কিন্তু সেই সাজার আগেই ভাইরাসের সংক্রমণে মৃত্যু হতে পারে— এই ভয়কেও পাত্তা না দিয়ে কোভিড-পজিটিভ তরুণীকে অ্যাম্বুল্যান্সের মধ্যে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল চালকের বিরুদ্ধে।

ভারতের  কেরলের পাঠানমথিট্টা জেলার এই ঘটনায় পুলিশ থেকে চিকিৎসা মহলে ব্যাপক আলোড়ন পড়েছে। জেলার পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ওই অ্যাম্বুল্যান্স চালককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন কেরলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী কেকে শৈলজা। অন্য দিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছে বিজেপি।

 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, স্থানীয় পাঠানমথিট্টার একটি পরিবারের দুই মহিলার কোভিড পজিটিভ রিপোর্ট আসে। সম্প্রতি কেরল সরকার একটি নির্দেশিকায় জানায়, শুধুমাত্র অ্যাম্বুল্যান্সের এক জন চালকই কোভিড রোগীদের হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করতে পারবেন। সেই মতো শনিবার মধ্যরাত নাগাদ ওই পরিবারের দুই মহিলাকে হাসপাতালে ভর্তির জন্য ওই চালক একাই গিয়েছিলেন। স্বাস্থ্য প্রশাসনের নির্দেশ মতো প্রথমে এক জনকে নিয়ে গিয়ে একটি হাসপাতালে ভর্তি করান। পরে দ্বিতীয় মহিলাকে অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার জন্য অ্যাম্বুল্যান্সে তোলেন। মাঝপথে একটি নির্জন জায়গায় অ্যাম্বুল্যান্স দাঁড় করিয়ে বছর বাইশের ওই তরুণীকে ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ। পরে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে ভর্তি করান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × 3 =

Translate »