গ্রিসকে বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার হুমকি দিলেন এরদোগান

ভূমধ্যসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান নিয়ে তৈরি উত্তেজনার বিষয়ে এবার গ্রিসকে হুমকি দিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) তিনি জানিয়েছেন এ বিষয়ে হয় আলোচনায় বসুন, নতুবা বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার জন্য প্রস্তুত থাকুন। খবর আল জাজিরা ও ইউরোনিউজের।

এরদোগান বলেছেন— হয় তারা রাজনীতি ও কূটনীতির ভাষা বুঝবে অথবা তাদেরকে বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতার শিকার হতে হবে। তারা যে অনৈতিক ম্যাপ ও ডকুমেন্ট দেখাচ্ছে সেটা ছিড়ে ফেলার রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামরিক শক্তি তুরস্কের রয়েছে। এটা তারা বুঝতে পারবে। তুরস্ক যেকোনো পরিস্থিতির জন্যই প্রস্তুত আছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন অনুযায়ী গ্রিসের বর্ডারে ট্যাঙ্ক মোতায়েন করছে তুরস্ক। চুম্বুরিয়েট পত্রিকার প্রতিবেদন অনুযায়ী সিরিয়া সীমান্ত থেকে সরিয়ে গ্রিস সীমান্তে ইতোমধ্যে ৪০টি ট্যাঙ্ক মোতায়েন করেছে ইউরোশিয়ান দেশটি। ওই পত্রিকা একটি ছবি প্রকাশ করেছে যেখানে দেখা যাচ্ছে সাঁজোয়া যানও প্রস্তুত রাখা হচ্ছে।

যদিও নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন সেনা কর্মকর্তা জানিয়েছেন যে ট্যাঙ্ক ও সাঁজোয়া যান প্রস্তুত রাখাটা তাদের নিয়মিত মহড়ার অংশ। এটার সঙ্গে ভূমধ্যসাগরে তৈরি উত্তেজনার কোনো সম্পর্ক নেই।

ভূমধ্যসাগরে তেল-গ্যাস অনুসন্ধান নিয়ে গ্রিস ও তুরস্কের মধ্যে বহুদিনের বিবাদ রয়েছে। সম্প্রতি তুরস্ক সাইপ্রাসের নিকটবর্তী নিজেদের অংশে তেল-গ্যাস অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর এটার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে গ্রিস। গ্রিসকে সমর্থন দিচ্ছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। তাতে করে গ্রিস ও তুরস্ক উভয় দেশই ভূমধ্যসাগরে তাদের যুদ্ধজাহাজ ও আকাশপথে বিমানের মহড়া বাড়িয়েছে। এ নিয়ে দুটি দেশের মধ্যে বেশ উত্তেজনাও বিরাজ করছে কিছুদিন ধরে।

বিষয়টির একটি সুরাহা করতে চাচ্ছে মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটো। তুরস্কও চাচ্ছে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধানে আসতে। এখন গ্রিস যদি আলোচনা না করতে চায় তাহলে তাদের দেখে নেওয়ার হুমকি দিয়ে রাখলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

13 − 4 =

Translate »