সরকার দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছে : ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ওয়াহিদা খানমের ওপর সন্ত্রাসীদের নৃশংস ও পৈশাচিক হামলার ঘটনায় আবারও প্রমাণিত হলো, এই সরকার দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছে।

শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, রাষ্ট্র পরিচালনায় বর্তমান সরকারের কোনো  নৈতিক ভিত্তি নেই। এরা সন্ত্রাসকে আশ্রয় করেই নিজেদের ক্ষমতা দীর্ঘস্থায়ী করতে চাচ্ছে।  বিরোধীদল ও মতকে দমন করে যাচ্ছে রক্তাক্ত কায়দায়। এখন সরকারি কর্মকর্তারাও এদের হিংস্রতার শিকার হচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, দুস্কৃতিকারীরা যেই হোক আগে যদি তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দেওয়া হতো, তাহলে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আক্রমণের শিকার হতেন না।  দেশে এখন আইন-কানুনের কোনো  বালাই নেই।  হত্যা, খুন, জখম, টাকা পাচার, মানব পাচার, আর্থিক প্রতিষ্ঠান লোপাট, টেন্ডারবাজি ও জবরদস্তি কায়েমের মতো অনাচার আড়াল করতেই দেশব্যাপী দুস্কৃতিকারীদের প্রশ্রয় দিয়ে রক্তাক্ত কর্মসূচির ধারা অব্যাহত রাখা হয়েছে।  এর সর্বশেষ শিকার হলেন ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, সরকার সারা দেশে অশান্তি ছড়িয়ে দিচ্ছে।  যে দেশে একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সন্ত্রাসীদের দ্বারা মারাত্মকভাবে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সাথে লড়াই করে, সে দেশে সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা কত অনিশ্চিত তা ব্যাখা করে বলার কোনো অবকাশ নেই।

তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওয়াহিদা খানম এবং তার পিতার ওপর নির্মম হামলার ঘটনায় নিন্দা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই।

ওয়াহিদা খানমকে আহত করার ঘটনা নিঃসন্দেহে একটি রাষ্ট্রের জন্য অশুভ সংকেত উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আমি দুস্কৃতিকারীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।  পাশাপাশি ওয়াহিদা খানমের পরিবার ও নিকটজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 + 1 =

Translate »