বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্তে কেঁদেছিল পরিবার: মেসি

অবসান হল ফুটবলের মহাতারকা লিওনেল মেসি ও স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা দ্বন্দ্ব। টানা দশ দিনের নানা গুঞ্জন, জল্পনা আর অস্থিরতার পর আরও এক মৌসুম ‘ভালোবাসার ক্লাবে’ই থেকে যাওয়ার ঘোষণা দেন মেসি। এরপরই অবসান হয় বার্সা-মেসি দ্বন্দ্ব।

তবে তিনি যখন বার্সা ছাড়ার কথা নিজের পরিবারকে জানিয়েছিলেন, তখন তারা তা মেনে নিতে পারেননি।
কাতালান জায়ান্টদের হয়ে এখন পর্যন্ত ২০ বছর কাটিয়েছেন মেসি। এই বার্সাতেই দীর্ঘদিন ধরে স্ত্রী আন্তোনেল্লা রোকুজ্জোকে নিয়ে বসবাস করছেন তিনি। রয়েছেন তিন ছেলে থিয়াগো, মাতেও ও সিরো।
গোল ডট কমের সঙ্গে আলাপে মেসি বলেন, ‘যখন আমি ক্লাব ছাড়ার ব্যাপারে পরিবারের সঙ্গে আলোচনা করি, তখন এক বাজে পরিস্থিতি তৈরি হয়। পুরো পরিবারই কাঁদা শুরু করে। আমার সন্তানেরা বার্সালোনা থেকে চলে যেতে চাইছিল না। এমনকি তারা স্কুলও পরিবর্তন করতে চায়নি। ’

‘তবে আমি পরবর্তীতে মাঠে মনোযোগ দেই এবং আমি সর্বোচ্চ পর্যায়ের খেলায় প্রতিযোগিতা করতে চাই, জিততে চাই শিরোপা। প্রতিযোগিতা করতে চাই চ্যাম্পিয়নস লিগে। আমনি জিততে পারেন অথবা হারতে পারেন। কেননা এটা কঠিন এক ময়দান। তবে আপনাকে প্রতিযোগিতা করতে হবে। আমাদের প্রতিযোগিতা করতে হবে এবং রোম, লিভারপুল ও লিসবনের মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখতে চাই না। ’

মেসি আরও বলেন, ‘মাতেও এখনও ছোট এবং সে জানে না অন্য কোথাও যাওয়ার মানে কি। থিয়াগোর বড় হয়েছে। সে টিভিতে কিছু শুনেছে এবং অনেক কিছু জানতে পেরেছে ও আমাকে জিজ্ঞেস করেছে। তবে ক্লাব থেকে জোরপূর্বক চলে যাওয়ার বিষয়টি এবং নতুন স্কুল নিয়ে অন্য কোথাও থাকা বা নতুন বন্ধু তৈরির ব্যাপারে আমি তাকে কিছুই জানাতে চাইনি। ’

‘সে কান্না করেছে এবং আমাকে বলেছে চলে যেও না। আমি তাকে বলেছি, এটা কঠিন, তবে এটাই বাস্তবতা। আমার ছেলে ও পরিবার এখানেই বড় হয়েছে এবং তারা এখানেই মানুষ। ’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *