নিরুপায় হয়েই বার্সেলোনাতেই থেকে যাচ্ছেন মেসি

সব ধোঁয়াশা কাটিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন লিওনেল মেসি। জানালেন কোনো ক্লাবের পক্ষেই তাকে নেওয়ার জন্য বার্সেলোনার দেওয়া ৭০ কোটি ইউরো দেওয়া ‘অসম্ভব’ এবং এ সমস্যা নিরসনে তিনি তার ‘ভালোবাসার ক্লাবটিকে’ আদালতে তুলতে চান না।

লিওনেল মেসি তাই অনিচ্ছুক হলেও অনেকটা নিরুপায় হয়েই বার্সেলোনাতেই থেকে যাচ্ছেন বলে জানান গোলডটকমকে। ওয়েবসাইটটিকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে তিনি পূর্বাপর সব ঘটনা তুলে ধরেন। এর আগে গত মঙ্গলবার মেসি স্পানিশ ক্লাবটি ছাড়ার জন্য নোটিশ দিয়েছিলেন। কিন্তু ক্লাবটি মেসিকে আটকেছে ৭০ কোটি ইউরোর বাইআউট ক্লজ দিয়ে।

মেসি গোলডটকমকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে একদম শুরু থেকে ঘটে যাওয়া সব ঘটনার পেছনের খবর জানান। ছয় বারের ব্যালন ডি অর জয়ী ৩৩ বছরের মেসি জানান, ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছা প্রথমে পরিবারকে জানাতেই প্রতিক্রিয়াটা ছিল বিরূপ। কাঁদতেই শুরু করেছিল পুরো পরিবার। স্ত্রী শেষ পর্যন্ত তার সিদ্ধান্তের পক্ষে থাকলেও পুত্র বার্সেলোনা ছেড়ে যেতে চায়নি।

নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করে এই আর্জেন্টাইন জানান, নতুন চ্যালেঞ্জের কথা ভেবেই তিনি দল ছাড়তে চেয়েছিলেন। মেসি আরো বলেন, ‘আমি ভেবেছিলাম, আর নিশ্চিতও ছিলাম যে, আমি দল ছাড়তে পারব মুক্ত খেলোয়াড় হিসেবেই। সভাপতি সব সময়ই বলেছেন যে, আমি মৌসুম শেষে চাইলেই ক্লাব ছাড়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারব। কিন্তু তিনি কথা রাখেননি।’

শেষমেশ থেকে যাওয়ার কারণ হিসেবে তিনি দায়ী করেন বাইআউট ক্লজকে। এ প্রসঙ্গে মেসি বলেন, ‘এখন আমি ক্লাবে থাকছি কারণ হচ্ছে সভাপতি আমাকে বলেছেন যে কেবল ৭০ কোটি ইউরো পেলেই তারা আমাকে ছাড়বেন, যা এখনকার অবস্থায় অসম্ভব।’

নিজ অবস্থানে আত্মবিশ্বাসী থাকায় মেসি যেতে পারতেন আদালতে। কিন্তু ক্লাবটা বার্সেলোনা বলেই সে পথ মাড়াননি তিনি। আর্জেন্টাইন অধিনায়কের ভাষায়, ‘আদালতে যাওয়ার পথ খোলা ছিল আমার। কিন্তু বার্সার বিপক্ষে কখনোই সেটা করতে চাই না, কারণ আমি ক্লাবটাকে ভালোবাসি। কারণ এরাই আমাকে সবকিছু দিয়েছে, যেদিন থেকে এখানে এসেছিলাম।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two + seven =

Translate »