ফের ৮ দিনের রিমান্ডে সাহেদ

সিআইডির করা এই মামলায় সাহেদের সঙ্গে তার প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাসুদ পারভেজেরও আট দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়েছে।

ঢাকার মহানগর হাকিম জিয়াউর রহমান বৃহস্পতিবার তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

আদালত পুলিশের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এসআই জালাল আহমেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ১১ কোটি টাকা ‘মানি লন্ডারিংয়ের’ এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির পরিদর্শক মো. মনিরুজ্জামান তাদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে। অপরদিকে আসামিদের পক্ষে আইনজীবীরা রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিনের আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে তার বিরোধিতা করা হয়।

রিমান্ড আবেদন বাতিল চেয়ে আসামিপক্ষের আইনজীবী শাহ আলম বলেন, “সাহেদ একটানা দেড় মাসের মতো বিভিন্ন মামলায় রিমান্ডের মুখোমুখি হয়েছেন। তিনি মানসকিভাবে অসুস্থ। রিমান্ডের মুখোমুখি হওয়ার মতো যোগ্যতা নাই।”

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে রিমান্ডের আদেশ দেন। এছাড়া এদিন উত্তরা পশ্চিম থানার প্রতারণার সাত মামলায় সাহেদকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেন বিচারক।

মহামারীর মধ্যে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা ও পরীক্ষা নিয়ে প্রতারণা এবং জালিয়াতির মামলায় গত ১৫ জুলাই রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক সাহেদকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এরপর বিভিন্ন মামলায় দীর্ঘ দিনের র‌্যাবের হেফাজতে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলে।

বিভিন্ন ব্যক্তির সঙ্গে প্রতারণা ও জালিয়াতি করে ৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা এবং করোনাভাইরাস পরীক্ষার ভুয়া রিপোর্ট দেওয়ার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ৩ কোটি ১১ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার প্রমাণ পাওয়ায় গত ২৫ অগাস্ট উত্তরা পশ্চিম থানায় সাহেদ ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিংয়ের মামলাটি দায়ের করেন সিআইডির পরিদর্শক ইব্রাহিম হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 + three =

Translate »