বার্সা ছাড়ছেন মেসি! বিশ্বাস না হলেও সত্য

অবিশ্বাস্য! শিরোনাম দেখার পরও বিশ্বাস হতে চায় না। গত কয়েকদিন ধরে গুঞ্জন উঠলেও এটা কি সত্যি হতে পারে? মেসি ছাড়া বার্সেলোনা কিংবা বলা ভালো বার্সেলোনার জার্সি ছাড়া মেসির কথা কেউ ভাবতে পারে কখনো? কিন্তু কার্লোস পুয়োল নিশ্চয় ভুল কথা জানাবেন না সবাইকে। বার্সেলোনার সাবেক অধিনায়কই যে প্রায় নিশ্চিত করে দিলেন বার্সেলোনা ছাড়লেন মেসি।

চ্যাম্পিয়নস লিগ কোয়ার্টার ফাইনালে হারের পর থেকেই গুঞ্জনটা উঠেছিল। বার্সেলোনা ছাড়তে চান লিওনেল মেসি। আজ বিকালের দিকে জানা গেল, মেসি বার্সায় থাকতে চান কি না তা আজই জানা যাবে। আর্জেন্টাইন তারকার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে গেছে। এখন তা প্রকাশ্যে জানানো বাকি। আর্জেন্টাইন সংবাদমাধ্যম ‘টিওয়াইসি স্পোর্টস’ জানিয়েছে, বুরোফ্যাক্সের (প্রত্যায়িত পত্র) মাধ্যমে বার্সাকে মেসি জানিয়েছেন তিনি ক্লাব ছাড়তে চান।

স্প্যানিশ রেডিও ‘ওন্দাচেরো’র ক্রীড়া বিভাগের প্রধান আলফ্রেডো মার্তিনেজও মেসির বার্সা ছাড়ার সিদ্ধান্তের খবর নিশ্চিত করে টুইট করেন, ‘বার্সা সমর্থকদের জন্য আজকের দিনটা খুব দুঃখের। লিওনেল মেসি জানিয়ে দিয়েছেন তিনি আর বার্সায় থাকতে চান না। ২৯ বছর পেশাদার স্কোয়াডে থাকার পর ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়টি যেতে চান, বার্তোমেউ থাকবেন।’ বার্সায় মেসির দীর্ঘদিনের সঙ্গী সাবেক ডিফেন্ডার ও অধিনায়ক কার্লোস পুয়োলও টুইট করেন, ‘সম্মান ও প্রশংসা লিও, আমার সমর্থন রইল বন্ধু।’ সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেসের বৈশ্বিক ক্রীড়া প্রতিবেদক রব হ্যারিস টুইট করেন, ‘লিওনেল মেসির ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছার কথা নিশ্চিত করেছে বার্সেলোনা।’

ইএসপিএনের বার্সেলোনার প্রতিনিধি ময়েজেস ইয়োরেন্স এর আগে টুইটারে জানিয়েছিলেন বার্সায় থাকা নিয়ে নিজের সিদ্ধান্ত আজই জানাবেন মেসি।। আর্জেন্টাইন পত্রিকা ওলের বরাতে দেওয়া সে খবর অনুযায়ী, বার্সেলোনা ক্যারিয়ার আর দীর্ঘ করবেন কি না সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়ে গেছে মেসির। এখন শুধু প্রকাশ্যে সে সিদ্ধান্ত জানানো বাকি। আর মানুষ যে এই সিদ্ধান্ত জানার অপেক্ষায় আছে, সেটাও তাঁর জানা। তাই দেরি না করে আজই জানিয়ে দেবেন, ১৩ বছর বয়স থেকে যে ক্লাবের সঙ্গে সম্পর্ক, সেই সম্পর্ক টিকে থাকবে কি না। তবে কখন এ সিদ্ধান্ত জানাবেন সে কথা তখন কেউ নিশ্চিত করতে পারেনি। বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির বর্তমান চুক্তির মেয়াদ আগামী বছরের জুন পর্যন্ত। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে বার্সায় গৃহদাহে মোটেও স্বস্তিতে ছিলেন না তিনি। মাঠ ও মাঠের বাইরে বার্সা বোর্ডের নানা সিদ্ধান্তে ক্লাবের ওপর অসন্তোষ ছিলেন আর্জেন্টাইন তারকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.