পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনে হত্যার প্রথম রায় ৯ সেপ্টেম্বর

ঢাকার পল্লবীতে গাড়িচালক ইশতিয়াক হোসেন (৩৩) হত্যা মামলার রায় ঘোষণার জন্য আগামী ৯ সেপ্টেম্বর দিন ঠিক করেছেন আদালত। আজ সোমবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচারক কে এম ইমরুল কায়েস এই আদেশ দেন। নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইনে এই প্রথম কোনো মামলার রায় হচ্ছে।

আইনটি সাত বছর আগে (২০১৩ সালে) পাস হয়। এই মামলার পাঁচ আসামির মধ্যে তিনজন পুলিশ কর্মকর্তা। তাঁরা হলেন পল্লবী থানার তৎকালীন উপপরিদর্শক (এসআই) জাহিদুর রহমান, সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) রাশেদুল ইসলাম ও এএসআই কামরুজ্জামান। আরও দুই আসামি হলেন পুলিশের কথিত সোর্স সুমন ও রাসেল।

তাঁদের মধ্যে এএসআই কামরুজ্জামান এবং সোর্স রাসেল পলাতক। আর কারাগারে আছেন এসআই জাহিদুর রহমান এবং সুমন। জামিনে আছেন এএসআই রাশেদুল ইসলাম।

রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামিপক্ষের যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আগামী ৯ সেপ্টেম্বর এই মামলার রায় ঘোষণার দিন ঠিক করেন। রাষ্ট্রপক্ষের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) তাপস কুমার পাল প্রথম আলোকে বলেন, ‘নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইন হওয়ার পর এই প্রথম কোনো মামলার রায় ঘোষণার দিন ঠিক করলেন আদালত। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে এই মামলায় আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি আদালতের কাছে চাওয়া হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষ আসামিদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছে। আমরা আশা করি, আদালত আসামিদের সর্বোচ্চ সাজা দেবেন। এই আইনের সর্বোচ্চ সাজা হচ্ছে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। এই মামলায় রাষ্ট্রপক্ষকে সহযোগিতা করছেন বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট)।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *