খালেদার সঙ্গে ফখরুলের সাক্ষাৎ

গুলশানের বাসায় গিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করেছেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার রাত সাড়ে ৭টায় বিএনপি মহাসচিব গুলশানে খালেদা জিয়ার বাসভবন ‘ফিরোজা’য় যান। রাত ৮টা ২৫ মিনিটে বেরিয়ে নিজের প্রাইভেটকারে করে চলে যান তিনি।

এর পরপরই ওই বাসায় আসেন খালেদা জিয়ার ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার ও তার স্ত্রী কানিজ ফাতিমা। তারা চলে যাওয়ার পরে মেজ বোন সেলিনা ইসলাম ফিরোজায় প্রবেশ করেন।

এর আগে গত ১ অগাস্ট কোরবানির ঈদের রাতে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের স্থায়ী কমিটির সদস্যরা খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছিলেন।

শারীরিকভাবে গুরুতর অসুস্থ খালেদা জিয়ার ওই বাসায় নেতাকর্মীদের যাওয়ায় কড়াকড়ি রয়েছে। হঠাৎ করে মির্জা ফখরুল কেন গেলেন, সে বিষয়ে বিএনপি নেতাদের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

১৫ অগাস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যাকাণ্ডের দিনটিকে জাতীয় শোক দিবস হিসেবে পালন করা হলেও এই দিনে কেক কেটে জন্মদিন উদযাপন করেন খালেদা জিয়া। তবে ২০১৬ সাল থেকে এই উদযাপন বন্ধ রয়েছে, এই দিনে খালেদার জন্য দোয়ার আয়োজন করছে বিএনপি।

১৯৯১ সালের নির্বাচনে বিএনপি জয়ী হয়ে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সরকার গঠনের দুই বছরের মাথায় ১৫ অগাস্ট কেক কেটে তার জন্মদিন পালন শুরু হয়। এর সমালোচনা করে আসছেন আওয়ামী লীগ নেতারা।

তাদের অভিযোগ, বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর বাংলাদেশকে পাকিস্তানি ভাবাদর্শের দিকে চালিত করার যে চেষ্টা করা হয়, ১৫ অগাস্ট জন্মদিন পালনের মধ্য দিয়ে কার্যত তা-ই উদযাপন করেন খালেদা।

বিএনপির ভাষ্য অনুযায়ী, শনিবার ৭৫ বছর পূর্ণ করলেন খালেদা জিয়া। ১৯৪৫ সালের ১৫ আগস্ট দিনাজপুরে তার জন্ম। তার বাবা এস্কান্দার মজুমদারের বাড়ি ফেনী হলেও তিনি দিনাজপুরে ঠিকানা নিয়েছিলেন। খালেদা জিয়ার জন্মও সেখানে। তার মায়ের নাম তৈয়বা মজুমদার।

দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত খালেদা জিয়া। করেোনাভাইরাস সংক্রমণের মধ্যে গত মার্চে সরকারের নির্বাহী আদেশে  সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়। এরপর থেকে গুলশানের এই বাসায় আছেন খালেদা জিয়া।

ওই বাসার নিরাপত্তা কর্মীরা জানান, বাসায় জন্মদিনের কোনো আয়োজন ছিল না। প্রবেশের ক্ষেত্রে কড়াকড়ি রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *