করোনাভাইরাস এখন আর কেবল স্বাস্থ্য সমস্যা নয়: শেখ হাসিনা

স্বল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোকেই করোনাভাইরাস মহামারীর ‘মূল বোঝার’ মুখোমুখি হতে হচ্ছে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এটা এখন আর কেবল স্বাস্থ্য সমস্যা নয়, বরং একটি পূর্ণাঙ্গ বৈশ্বিক অর্থনৈতিক ও সামাজিক সংকটে রূপ নিয়েছে।

বুধবার সুইজারল্যান্ডের জেনিভা থেকে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা (আইএলও) আয়োজিত ভার্চুয়াল বৈশ্বিক সম্মেলনে যোগ দিয়ে তিনি একথা বলেন। বিশ্বের ৮০টির বেশি দেশের নেতৃবৃন্দের পাশাপাশি জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেসসহ বিভিন্ন সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ কর্মকর্তারা এই অনলাইন সম্মেলনে যোগ দেন।

কোভিড-১৯ মহামারী বাংলাদেশের মতো দেশগুলো, বিশেষত শ্রমিকদের সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত করেছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, “বিশ্বব্যাপী এই বিপর্যয় এখন বিশ্বায়ন ও যোগাযোগের মূল ভিত্তিকে হুমকির মুখে ফেলেছে, যা আমরা দীর্ঘ সময় ধরে অনেক যত্নে গড়ে তুলেছিলাম। এটি এখন কেবল স্বাস্থ্য সমস্যা নয়, বরং একটি পূর্ণাঙ্গ বৈশ্বিক অর্থনৈতিক ও সামাজিক সঙ্কটে পরিণত হয়েছে।”

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, “অন্যান্য সঙ্কটের মতো এলডিসি ও উন্নয়নশীল দেশগুলোই কোভিড-১৯ মহামারীর মূল বোঝার মুখোমুখি হচ্ছে, যদিও এই সংকট তাদের দিয়ে শুরু হয়নি।

“এই মহামারীর কারণে আমাদের দেশীয় ও বৈদেশিক সরবরাহ চেইনগুলো মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আমরা কয়েক বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আদেশ হারিয়েছি, আমাদের অনেক শিল্প বন্ধ হয়ে গেছে এবং লক্ষ লক্ষ শ্রমিক তাদের চাকরি হারিয়েছে।”

শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের ক্ষুদ্রশিল্প তাদের বেশিরভাগ সম্পদ ও বাজার হারিয়েছে এবং সর্বোপরি সরবরাহ ব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার কারণে কৃষি ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছে।

“এর উপর আমরা মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছি।”

বক্তব্যে করোনাভাইরাস সংকট মোকাবেলায় বিভিন্ন খাতে সরকারের প্রণোদনা প্রদান এবং দুর্গতদের সহায়তায় নগদ অর্থ ও ত্রাণ সামগ্রী দেওয়াসহ সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *