যুক্তরাজ্যকে হংকংয়ে নাক না গলানোর হুঁশিয়ারি চীনের

নতুন জাতীয় নিরাপত্তা আইন চালুর পর হংকংয়ে নাক না গলানোর ব্যাপারে যুক্তরাজ্যকে হুঁশিয়ার করে দিয়েছে চীন।

হংকংয়ের প্রায় ৩০ লাখ বাসিন্দাকে যুক্তরাজ্য এরই মধ্যে নাগরিকত্বের যে প্রস্তাব দিয়েছে তা চীনের অভ্যন্তরীন বিষয়ে ‘বড় ধরনের হস্তক্ষেপের’ সামিল বলে অভিযোগ করেছেন চীনা রাষ্ট্রদূত লিউ শিয়াওমিং।

চীনের নতুন নিরাপত্তা আইনে হংকংয়ের ‘স্বাধীনতা’ ক্ষুণ্ণ হয়েছে অভিযোগ করে এতে যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন তাদেরকে যুক্তরাজ্যের সাবেক উপনিবেশটি ছাড়ার সুযোগ দেওয়া হবে বলে সদ্যই জানিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

এ প্রস্তাব অনুযায়ী, হংকংয়ে যুক্তরাজ্যের পাসপোর্টধারী প্রায় তিন লাখ ৫০ হাজার বাসিন্দাসহ আরও ২৬ লাখ ‘উপযুক্ত’ বাসিন্দা যুক্তরাজ্যে গিয়ে পাঁচ বছর বাস করতে পারবেন। এর একবছর পর তারা নাগরিকত্বের জন্য আবেদনও করতে পারবেন।

সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত লিউ বলেন, “চীন কখনও যুক্তরাজ্যসহ অন্য কোনও দেশের অভ্যন্তরীন বিষয়ে হস্তক্ষেপ করেনি। যুক্তরাজ্যও সে নীতি মেনে চলবে বলে আমরা আশা করি।”

“যুক্তরাজ্য ভাল করেই জানে যে হংকং আর ঔপনিবেশিক শাসনে নেই। হংকংকে চীনের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং এটি এখন চীনের অংশ।”

“হংকং হস্তান্তর হয়ে যাওয়ার পর সেখানে যুক্তরাজ্যের আর কোনও সার্বভৌমত্ব নেই এবং কোনও প্রভাব খাটানো বা তদারকির অধিকারও নেই।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *