লেভানদোভস্কির গোলে বায়ার্নের শিরোপা

মঞ্চ ছিল প্রস্তুত। বাকি ছিল যেন স্রেফ আনুষ্ঠানিকতা। সেটাই সেরে নিল বায়ার্ন মিউনিখ। ভার্ডার ব্রেমেনকে তাদেরই মাঠে হারিয়ে টানা অষ্টমবারের মতো বুন্ডেসলিগার শিরোপা উল্লাসে মেতে উঠল জার্মানির সফলতম দলটি।

দুর্দান্ত ফর্মে থাকা রবের্ত লেভানদোভস্কির একমাত্র গোলে মঙ্গলবার ব্রেমেনকে হারিয়ে দুই ম্যাচ বাকি থাকতে শিরোপা নিশ্চিত করে বায়ার্ন। প্রতিযোগিতার রেকর্ড চ্যাম্পিয়নদের এটি ৩০তম শিরোপা।

শিরোপা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মাঠে নামা বায়ার্ন এগিয়ে যায় ম্যাচের ৪৩তম মিনিটে। জেরোমে বোয়াটেংয়ের রক্ষণের ওপর দিয়ে উঁচু করে বাড়ানো বল ডি-বক্সে বুক দিয়ে নামিয়ে ডান পায়ের কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন লেভানদোভস্কি।

লিগে সর্বোচ্চ গোলদাতার এটি ৩১তম গোল। সব প্রতিযোগিতা মিলে মৌসুমে ৪০ ম্যাচে ৪৬টি।

৬০তম মিনিটে ব্যবধান বাড়িয়ে ম্যাচ নিয়ন্ত্রণে নিতে পারতো বায়ার্ন। কিন্তু টমাস মুলারের ক্রসে দারুণ পজিশনে থেকেও লক্ষ্যভ্রষ্ট হেড করেন লেভানদোভস্কি।

৮০তম মিনিটে প্রতিপক্ষের সার্ব ডিফেন্ডার মিলোস ভেলিকোভিচকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন বায়ার্ন মিডফিল্ডার আলফুঁস ডেভিস।

১০ জনের দলে নেমে গিয়ে শেষ মুহূর্তে গোল খেতে বসেছিল শিরোপাধারীরা। তবে ওসাকার হেড ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন গোলরক্ষক মানুয়েল নয়ার। শিরোপা নিশ্চিত হয় বায়ার্নের।

গ্যালারিতে দর্শক না থাকার কারণেই হয়তো বায়ার্নের উদযাপন হলো সাদামাটা। একে অপরকে জড়িয়ে ধরা ও পিঠ চাপড়ে দেওয়া-এই।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে প্রেক্ষাপটে পরিবর্তন না এলে হয়তো আজকে তাদের উদযাপন হতো বাঁধভাঙা। এমনিতে জার্মানির শীর্ষ লিগে তাদেরই আধিপত্য, বরাবরই ফেভারিট থাকে তারা। তবে এবার মুকুট অন্য কোনো দলের মাথায় ওঠার সম্ভাবনা জেগেছিল।

দলটির মৌসুমের শুরুর চিত্র ছিল বেশ খারাপ; প্রথম চার মাসে ১৪ রাউন্ডে চারটিতে হেরেছিল তারা, তিন ড্র। সাত জয়ে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তম স্থানে নেমে গিয়েছিল বায়ার্ন। ব্যর্থতার দায়ে চাকরি হারান তখনকার কোচ নিকো কোভাচ।

গত নভেম্বরের শুরুতে হান্স ফ্লিক অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার পর ঘুরে দাঁড়ায় বায়ার্ন।

সবশেষ বায়ার্ন হেরেছিল গত বছরের ৭ ডিসেম্বর; বরুসিয়া মনশেনগ্লাডবাখের মাঠে ২-১ গোলে। এরপর টানা ১৮ ম্যাচ অপরাজিত থেকে শিরোপা জিতল তারা; এর মধ্যে ড্র মাত্র একটি। আর শেষ ১১ রাউন্ডে টানা জয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *