বড় এলাকা নিয়ে জরুরিভাবে লকডাউনের তাগিদ জাতীয় কমিটির

করোনাভাইরাসের বিস্তার বন্ধ করতে সারাদেশে আক্রান্ত ও ঝুঁকির মাত্রার ভিত্তিতে যতটা বড় এলাকায় সম্ভব, জরুরিভাবে লকডাউন করার সুপারিশ করেছে জাতীয় কমিটি।

করোনাভাইরাসের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সরকারের গঠিত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির নবম সভা শেষে থেকে বুধবার এই জোরালো সুপারিশ আসে।

সভায় হাসপাতালের সেবার পরিধি বাড়ানোসহ পাঁচটি সুপারিশ করে তা দ্রুত বাস্তবায়নের তাগিদ দিয়েছে ১৭ সদস্যের এই কমিটি।

কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ সহিদ উল্লাহ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সামাজিক বিচ্ছিন্নকরণ নিশ্চিত করতে ‘পূর্ণ লকডাউন’ প্রয়োজন।

“কারিগরি পরামর্শক কমিটি জীবন এবং জীবিকার সামঞ্জস্যের গুরুত্ব উপলব্ধি করে সারা দেশে আক্রান্ত ও ঝুঁকির মাত্রার ভিত্তিতে যতটা বড় এলাকায় সম্ভব জরুরিভাবে লকডাউনের জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে দৃঢ় অভিমত ব্যক্ত করে।”

এর আগে অত্যন্ত জরুরিভিত্তিতে সব হাসপাতালে হাই-ফ্লো অক্সিজেন থেরাপির প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করে তা চালু করার পরামর্শ দিয়েছিল কমিটি।

এবারের বৈঠকেও কমিটি হাই-ফ্লো অক্সিজেন থেরাপি সব হাসপাতালে চালু ও সম্প্রসারণ করার পরামর্শ দিয়েছে।

স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা ব্যাপকহারে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে কমিটির সভায়।

চিকিৎসকদের সুরক্ষা দিতে না পারলে স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রম ব্যাহত হওয়ার শঙ্কার কথাও বলেছে জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

এ অবস্থায় স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য দ্রুত আলাদা হাসপাতাল চালুর পরামর্শ এসেছে সভা থেকে।

এর আগে সব হাসপাতালে কোভিড ও নন-কোভিড রোগীদের আলাদা চিকিৎসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত দিয়েছিল জাতীয় কমিটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *