কী করলে গরমে চুল সুন্দর থাকবে?

গরমে ত্বক নিয়ে যতটা না চিন্তা কাজ করে, তার চেয়ে চুল নিয়ে চিন্তা হয় বেশি। কারণ একে তো গরমের কারণে ঘাম জমে স্ক্যাল্পের বারোটা বাজে, সেইসঙ্গে ধুলোবালি তো রয়েছেই। তাই গরম এলেই চুলের আগাফাটা আর রুক্ষতা বেড়ে যায় অনেক।

গরমে বাতাসের আর্দ্রতা বেশি থাকায় চুল নেতিয়েও থাকে। কাজেই গরমের দিনগুলোতে চুলের বাড়তি যত্ন নেয়া। জেনে নিন গরমে চুল ভালো রাখতে কী করবেন-

ত্বক ভালো রাখতে সানস্ক্রিন মাখেন তো? শুধু মুখে সানস্ক্রিন মাখলেই হবে না, একই যত্ন দরকার চুলের ক্ষেত্রেও। বাড়ির বাইরে পা দেওয়ার আগে চুলে আর স্ক্যাল্পে সানস্ক্রিন লাগিয়ে মাসাজ করে নিন।

গরমে খোলা চুল মানেই একরকম অস্বস্তি। তাই চুলটা বেঁধে রাখা ভালো। বাহারি স্কার্ফ বা টুপিতে ঢেকে রাখুন চুল।

Chul-1

চুলে নারিশিং শ্যাম্পু মাখুন। নারিকেল, শিয়া বাটার, আর্গান অয়েল-বেসড শ্যাম্পু চুলের পক্ষে ভালো। একই সঙ্গে শ্যাম্পু ঠিকমতো লাগানোও সমান জরুরি। চুলে সরাসরি শ্যাম্পু লাগাবেন না। স্ক্যাল্পে ঘষে ফেনা করুন, তারপর সেই ফেনা চুলে লাগিয়ে ধুয়ে নিন। তাতে অতিরিক্ত শ্যাম্পুতে চুল রুক্ষ হবে না।

গরম আর ঘাম চুল এতটা চটচটে করে দেয় যে, প্রতিদিন শ্যাম্পু করতে মন চায়। কিন্তু তাতে চুল রুক্ষ হওয়া অবশ্যম্ভাবী। সপ্তাহে তিনবারের বেশি কোনোভাবেই শ্যাম্পু করবেন না আর প্রতিবার কন্ডিশনার অবশ্যই লাগাবেন। চুল ডিপ কন্ডিশনিং করতে কন্ডিশনারের বদলে হেয়ার মাস্ক লাগান। ঘরোয়া হেয়ার প্যাকও ব্যবহার করতে পারেন। ডিম, দই আর মধু দিয়ে তৈরি হেয়ার প্যাক শুকনো বিবর্ণ চুলের জন্য খুব উপকারী।

Chul-2

আর্দ্রতা চুলের গভীরে ধরে রাখতে কন্ডিশনিংয়ের পাশাপাশি থেরাপিউটিক হেয়ার অয়েল মাসাজ করতে পারেন। নারিকেল, অলিভ আর আমন্ড অয়েল চুলের স্বাস্থ্য আর বাড়বৃদ্ধির পক্ষে খুব ভালো। সাতদিন বা চৌদ্দদিন পরপর চুলে অয়েল মাসাজ নিন।

এছাড়া হাতের কাছে রাখুন হাইড্রেটিং হেয়ার মিস্ট। রুক্ষতার হাত থেকে চুলকে রক্ষা করবে এই মিস্ট। অ্যালোভেরা জেলে পানি মিশিয়ে পাতলা করে নিলেও দারুণ ঘরোয়া হেয়ার মিস্ট পেয়ে যাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *