করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণে আনার দাবি ফ্রান্সের

মহামারি নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ যখন বিশ্বজুড়ে আশঙ্কাজনক হারে ছড়াচ্ছে তখন ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে এসেছে বলে দাবি করেছে ফ্রান্স। দেশটির সরকারি বৈজ্ঞানিক উপদেষ্টা পরিষদের প্রধান শুক্রবার এমন ঘোষণা দেন। এক অনলাইন প্রতিবেদনে এই খবর জানিয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

করোনা মোকাবিলায় দেশটির সরকার কর্তৃক গঠিত বৈজ্ঞানিক পরিষদের প্রধান উপদেষ্টা জ্য ফ্রাঙ্কোইস দেলফ্রাইসি ফ্রান্স ইন্টার রেডিওকে বলেছেন, ‘আমরা যৌক্তিকভাবে বলতে পারি যে, এখন ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘বিশেষ কিছু অঞ্চলে ভাইরাসটির সংক্রমণ থাকলেও তার গতি খুব ধীর।’

বিজ্ঞাপন

দেলফ্রাইসি জানান, নতুন রোগী শনাক্তে সম্ভাব্য সব উপায় কাজে লাগাচ্ছে ফ্রান্স। মাস্কের ব্যাপক ব্যবহার সংক্রমণ কমে আসার নেপথ্য কারণ বলে অভিহিত করেন তিনি। দেশের করোনার প্রকোপ সবচেয়ে বেশি দেখা দেওয়া পারিসিয়ান অঞ্চলে কঠোর নিষিধাজ্ঞাকেও তিনি আরেকটি বড় কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

ইউরোপের প্রথম দেশ হিসেবে ফ্রান্সে প্রথম কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত হয় গত ২৪ জানুয়ারি। ভাইরাসটির প্রকোপ সামলাতে মার্চের শুরুতে বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। পরিস্থিতি অনেকটা নিয়ন্ত্রণে আসার পর লকডাউন নিষেধাজ্ঞা শিথিল হতে শুরু করে। দেশটির জনজীবন এখন অনেকটা স্বাভাবিক।

বিজ্ঞাপন

মহামারি মোকাবিলায় সরকার মার্চের মাঝামাঝি সময়ে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ছাড়াও গণজমায়েত নিষিদ্ধ করে। এছাড়া বন্ধ করে দেয়া হয় রেস্তোরাঁ, ক্যাফে, সিনেমা হলসহ সব গণজমায়েতের জায়গা। এখন পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। তবে ধীরে ধীরে সবকিছু পুনরায় সচল হচ্ছে দেশটিতে।

ফ্রান্সে দ্বিতীয় দফায় জনজীবন স্বাভাবিক করার প্রক্রিয়া চলছে এখন। চলতি সপ্তাহ থেকে রেস্তোরাঁ ও বার খুলতে শুরু করেছে সেখানে। এছাড়া দেশটির বাসিন্দাদের ১০০ কিলোমিটারের মধ্যে চলাচলে ওপর যে নিষেধাজ্ঞা আরোপিত ছিল তাও তুলে নেওয়া হয়েছে। তবে দেলফ্রাইসি বলছেন, এখনই বেশি ঢিলেঢালা হওয়া যাবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *