হাসপাতাল ছেড়েছেন সোনাজয়ী প্রিয়া

সিটি স্ক্যানে গুরুতর কিছু ধরা পড়েনি। চিকিৎসা নিয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে (এসএ গেমসে) বাংলাদেশকে সোনার পদক এনে দেওয়া কারাতেকা মারজান আক্তার প্রিয়া।

কাঠমান্ডুর সাতদাবাতোর ইন্টারন্যাশনাল স্পোর্টস কমপ্লেক্সে বুধবার ফাইনালে ওঠার ম্যাচে শ্রীলঙ্কার প্রতিযোগীর সঙ্গে লড়াইয়ে দুইবার চোয়ালে আঘাত পান প্রিয়া। ম্যাটে পড়ে গিয়ে জ্ঞান হারালে তাকে তাৎক্ষণিকভাবে কমপ্লেক্সে থাকা ডাক্তাররা চিকিৎসা দেন। এরপর পাঠিয়ে দেন দশরথ স্টেডিয়ামের কাছে ব্লু ক্রস হাসপাতালে।

জরুরী বিভাগে অর্থো সার্জন বিভাগের সিনিয়র কনসালট্যান্ট প্রাজ্জ্বল মানের কাছ থেকে প্রিয়া চিকিৎসা নেওয়ার পর তার সঙ্গে কথা বলেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা। জানান শঙ্কা না থাকার কথা।

“সিটি স্ক্যান করা হয়েছে। সে রিপোর্টও নরমাল এসেছে। ডাক্তারের সঙ্গে কথা হয়েছে। সমস্যা নেই। তারপরও ডাক্তার ওকে দুই ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখবে। এরপর সবকিছু ঠিক থাকলে ছাড়পত্র দেবেন।”

নিউরো সার্জন অভিষেক চাতুরবেদীর পর্যবেক্ষণে ছিলেন প্রিয়া। তিনিও  জানালেন, মারাত্মক কিছু পাওয়া যায়নি স্ক্যান রিপোর্ট।

“সিটি স্ক্যান রিপোর্ট নরমাল। কিছু ঔষধ দিয়েছি। আগামী সাত-আট দিন তাকে বিশ্রামে থাকতে হবে এবং ওষুধগুলো খেতে হবে। এ সময় খেলাধুলা করতে নিষেধ করেছি। ফ্লাইটে চড়তে পারবে; দেশে ফিরতে পারবে।”

আগের দিন মেয়েদের অনূর্ধ্ব-৫৫ কেজি ওজন শ্রেণিতে পাকিস্তানের কৌসরা সানাকে ৪-৩ পয়েন্টে হারিয়ে সোনা জিতেন প্রিয়া। দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় ক্রীড়া আসরে প্রথমবারের মতো পরেন সেরার মুকুট। বাংলাদেশকে এনে দেন তৃতীয় সোনা জয়ের উপলক্ষ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × 1 =

Translate »