ঢাবি থেকে চাকরি হারালেন পাঁচ শিক্ষক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) পাঁচ শিক্ষককে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। ছুটি শেষে চাকরিতে যোগ না দেওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মবহির্ভূত কাজে জড়িত থাকায় দুই কর্মচারীকেও চাকরিচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট।

বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের সভাপতিত্বে সিন্ডিকেটের এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বুধবারের সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও বৃহস্পতিবার রাতে গণমাধ্যমকে তা জানানো হয়।

চাকরিচ্যুত করা পাঁচ শিক্ষক হলেন- বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সানোয়ার উদ্দীন আহমেদ, ফিন্যান্স বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোহাম্মদ মুজিবুল কবির, অ্যাকাউন্টিং ইনফরমেশন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোসাম্মৎ আসমা জাহান, প্রাণ রসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহা. সোহেল শামসুজ্জামান এবং তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক কৌশল বিভাগের প্রভাষক আয়েশা জামান।

চাকরিচ্যুত করা দুই কর্মচারীর মধ্যে একজন প্রকৌশল দপ্তরের পিয়ন কাম গার্ড অজিত চন্দ্র ভৌমিক, যার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ ছিল এবং অন্যজন পরিবহন দপ্তরের উচ্চমান সহকারী মোহাম্মদ কামরুজ্জামান, তার বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অমান্য করে অফিসে অনিয়মিত থাকার অভিযোগ ছিল।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম না মানলে বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকা উচিত নয় মন্তব্য করে এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, যেসব শিক্ষকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তারা ছুটি নিয়ে বিদেশ গিয়েছিলেন। কিন্তু ছুটি শেষে তারা আর ফিরে আসেননি। আমরা তাদেরকে বারবার ফিরে আসতে বলেছি, তারা আসেননি। তাই তাদের পাঁচজনকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। আর শৃঙ্খলাবহির্ভূত কাজ করায় দুই কর্মচারীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

তবে পিএইচডি গবেষণায় চৌর্যবৃত্তির আশ্রয় নেওয়া শিক্ষকদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে পরবর্তী বৈঠকে এ নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে জানান অধ্যাপক আখতারুজ্জামান।

এর আগে গত ২৯ সেপ্টেম্বর সিন্ডিকেট সভায় ছুটি শেষে স্ব-স্ব চাকরিতে যোগদান না করার কারণে তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাফিস জামান শুভ ও ক্লিনিক্যাল ফার্মেসি ও ফার্মাকোলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আহসানুল আকবরকে চাকরিচ্যুত করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

one × 1 =

Translate »