প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্তে ধাক্কা খেয়েছেন বিসিবি সভাপতি

অপরিচিত গোলাপি বলে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন অধিনায়ক মুমিনুল হক। পরের ফলাফল, প্রথম ইনিংসে অলআউট ১০৬ রানে। বাংলাদেশ দলের এমন সিদ্ধান্তে বেশ অবাক হয়েছেন নাজমুল হাসান পাপন। ইডেন টেস্টের দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে সংবাদ মাধ্যমকে বিসিবি প্রধান জানালেন, তার সঙ্গে অধিনায়ক ও কোচের নেয়া সিদ্ধান্ত ছিল ভিন্ন!

ইন্দোর টেস্টেও টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন মুমিনুল। সেই টেস্টে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট হয়েছিল ১৫০ রানে। ম্যাচ হেরেছিল ইনিংস ও ১৩০ রানে। একসঙ্গে বসে তাই অধিনায়ক, কোচ ও বোর্ড প্রধানের সিদ্ধান্ত ছিল ইডেনে ফিল্ডিং নেয়ার। টসে গিয়ে সিদ্ধান্ত পাল্টে যাওয়ায় বেশ অবাক হয়েছেন নাজমুল হাসান।

‘প্রথমে ব্যাটিং নেয়ায় সত্যি আশ্চর্য হয়েছি। ম্যাচের আগেরদিন আমি দলের সঙ্গে বসেছি। অধিনায়ক-কোচ দুজনেই বলেছিল যে টসে জিতলে প্রথমে ফিল্ডিং নেবো। তখন তাদের কথা শুনে মনে হয়েছে এখানে চিন্তার কী আছে?’

‘টসে গিয়ে যখন দেখেছি আমরা ব্যাটিং নিয়েছি, প্রথম ধাক্কাটা আসলে তখনই খেয়েছি আমি। তখনই মনে হয়েছে দল আসলে বেশি আত্মবিশ্বাসী। ভারতের যতজনের সঙ্গে আমি কথা বলেছি, সবাই বলেছে তারা টসে জিতলে ফিল্ডিংই নিতো। ওরা কখনোই ব্যাটিং নিতো না কারণ একদম নতুন পিচ এবং এই গোলাপি বল, কেমন আচরণ করছে না জেনেশুনে ওরা ব্যাটিং নিতো না।’

পুরো সিরিজজুড়ে এক মুশফিকুর রহিম ছাড়া ব্যর্থ অধিনায়ক মুমিনুল, ইমরুল কায়েসের মতো অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানরা। তাদের কাছে প্রত্যাশা পূরণ হয়নি বলেও জানালেন বোর্ড প্রধান, ‘আমাদের যারা সিনিয়র খেলোয়াড় ছিল, তাদের কাছে আমাদের ধারণা ছিল যে প্রতিপক্ষ যত ভালো বলই করুক, ওরা তো ভালো বল খেলে এসেছে অতীতে। তাদের কাছে যে প্রত্যাশাটা ছিল তার কিছুই পূরণ হয়নি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

three + twelve =

Translate »