ব্রিটেনে আগাম নির্বাচনের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান

ব্রিটেনে আগাম নির্বাচনের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছেন সে দেশের পার্লামেন্টের সদস্যরা।

বিবিসি জানিয়েছে, নির্বাচনের জন্য সোমবার হাউস অব কমন্সে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের আনীত প্রস্তাবের পক্ষে পড়ে ২৯৯ ভোট ও বিপক্ষে ৭০ ভোট।

আগামী ১২ ডিসেম্বর সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিকল্পনায় পার্লামেন্টে প্রস্তাব এনেছিলেন জনসন। পার্লামেন্ট অ্যাক্ট অনুযায়ী ওই প্রস্তাব পাসের জন্য দুই-তৃতীয়াংশের সমর্থন প্রয়োজন।

অর্থাৎ প্রস্তাব পাসে এর পক্ষে অন্তত ৪৩৪টি ভোট প্রয়োজন ছিল। রক্ষণশীল দলের সব সদস্য প্রস্তাবে সমর্থন দিলেও বিরোধী দল লেবার পার্টির অনেক সদস্য ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকে। ফলে ভেস্তে যায় জনসনের উদ্যোগ। তবে এতে দমে যাননি তিনি।

জনসন জানিয়েছেন, তিনি এমন একটি আইনি পথে আবার চেষ্টা করবেন যেখানে শুধু সাধারণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা হলেই চলবে, দুই-তৃতীয়াংশ ভোটের প্রয়োজন হবে না।

আগাম নির্বাচনের জন্য হাউস অব কমন্সের সমর্থন পেতে জনসন ফের চেষ্টা করতে পারেন এবং তা আজই।

প্রসঙ্গত, ব্রেক্সিটের (ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বেরিয়ে যাওয়া) জন্য নির্ধারিত সময়সীমা ৩১ অক্টোবর থেকে পিছিয়ে না দেয়ার পক্ষে অটল ছিলেন জনসন।

কিন্তু পার্লামেন্টে বিরোধীদের পাস করা একটি আইন অনুযায়ী ব্রেক্সিটের চূড়ান্ত সময়সীমা তিন মাস (৩১ জানুয়ারি ২০২০) পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়ার অনুরোধ করে ইইউয়ের কাছে চিঠি পাঠাতে বাধ্য হন প্রধানমন্ত্রী। গত মাসে হাউস অব কমন্সে ওই প্রস্তাব পাস হয়।

এরপরই আগাম নির্বাচনের উদ্যোগ নেন জনসন। কিন্তু গতকাল তার প্রথম চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। আজ যদি সাধারণ সমর্থনে প্রস্তাব পাস হয় তাহলে ডিসেম্বরে ভোটগ্রহণ করা হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

2 × 2 =

Translate »