সিরিয়ায় কুর্দিদের ওপর তুরস্কের হামলা অব্যাহত

তুরস্কের সেনাহামলা অব্যাহত থাকলে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটকে (আইএস) প্রতিরোধ করার আর প্রয়োজন থাকবে না বলে জানিয়েছে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলের কুর্দিরা।

শনিবার (১২ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে একথা জানায় কুর্দি নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্স (এসডিএফ)।

তারা জানায়, তুর্কি সেনা হামলায় এরই মধ্যে শতাধিক কুর্দি নিহত হয়েছে। প্রাণরক্ষার স্বার্থে এলাকা ছাড়তে বাধ্য হয়েছে অন্তত এক লাখ মানুষ।

এখন পর্যন্ত ওয়াশিংটনের কাছেও সরাসরি সহায়তার আশ্বাস পায়নি যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত কুর্দিরা। সিরিয়ার বাশার আল আসাদ সরকারও তুরস্কের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেয়নি।

অবশেষে নিজেদের প্রাণ রক্ষায় মুখ খুলেছেন এক কুর্দি নেতা। তিনি বলেন, আইএস জঙ্গিদের বন্দিশিবির কামিশলি ও হাসাকেহতে আর পাহারা দেওয়ার প্রয়োজন দেখছি না। তার অভিযোগ, ২০১৫ সালে আইএস নির্মূলে যুক্তরাষ্ট্রকে সহায়তা দিলেও এখন কুর্দিদের নিশ্চিহ্ন হতে দেখেও ওয়াশিংটন নিশ্চুপ।

তবে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, কুর্দিদের সহায়তায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়্যব এরদোয়ানের সঙ্গে আলোচনার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মধ্যস্থতায় রাজি না হলে দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির হুঁশিয়ারিও দিয়েছেন তিনি।

তুরস্কের দাবি, নিজ দেশের সীমান্তে কুর্দি মিলিশিয়াদের হটিয়ে নিরাপদ এলাকা তৈরি করছে তারা। তুরস্কের অভ্যন্তরে থাকা বিদ্রোহীদের সঙ্গে এদের যোগাযোগ রয়েছে বলে মনে করে দেশটির সরকার।

গত ৯ অক্টোবর থেকে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে সেনা অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে আঙ্কারা। ইতোমধ্যে সীমানা দখলের দাবি করেছে দেশটি।

এদিকে, আঙ্কারার এই সেনা অভিযানের নিন্দা জানিয়েছে জাতিসংঘ, রাশিয়া, ফ্রান্সসহ কয়েকটি আন্তর্জাতিক সংস্থা ও দেশের নেতারা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × two =

Translate »